, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ অনলাইন সংস্করণ

৫ দফা দাবিতে চবির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের স্মারকলিপি

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

৫ দফা দাবিতে চবির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের স্মারকলিপি

প্রশাসক পদ বাতিল, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পদোন্নতি নির্বাচনী বোর্ড, ডিউ ডেট বহালসহ পাঁচ দফা দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) কর্মকর্তা-কর্মচারী যৌথ সংগ্রাম পরিষদ।

মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক এস এম মনিরুল হাসানের কাছে এ স্মারকলিপি দেন তারা।

এ সময় পরিষদের আহ্বায়ক ও চবি অফিসার সমিতির সভাপতি রশিদুল হায়দার জাবেদ, মহাসচিব ও চবি কর্মচারী সমিতির সভাপতি আনোয়ার হোসেন, যুগ্ম আহ্বায়ক ও অফিসার সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হামিদ হাসান নোমানী, যুগ্ম মহাসচিব ও কর্মচারী সমিতির সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম শহীদ ও অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সোমবার (৪ অক্টোবর) চবি অফিসার সমিতি ও কর্মচারী সমিতির কার্যকরী সংসদের সিদ্ধান্তের আলোকে অনুষ্ঠিত কর্মকর্তা-কর্মচারী যৌথ সংগ্রাম পরিষদের সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পক্ষ থেকে এ দাবিগুলো উত্থাপিত হয়।

স্মারকলিপিতে আগামী ১০ অক্টোবরের মধ্যে দাবি বাস্তবায়নের সময়সীমা বেঁধে দেয়া হয়।

দাবিগুলো হলো-
১. প্রশাসক পদ বাতিলসহ অফিসারদের সকল পদ হতে শিক্ষকদের প্রত্যাহার।

২. কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পদোন্নতি নির্বাচনী বোর্ড সভা বাস্তবায়ন।
৩. কর্মকর্তাদের ডিউ ডেট সুবিধা পূর্বের মতো বহাল রাখা।

৪. তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারীদের পদোন্নতির নীতিমালা সংশোধন-সংযোজন পূর্বক সময়োপযোগী করা এবং

৫. ওয়ারিশ সূত্রে চাকরি নিশ্চিতকরণ (বিশেষত যারা চাকরিরত অবস্থায় মারা গেলে) করতে বিগত ৩০ সেপ্টেম্বর ২০০২ তারিখে অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেটের ৩৯১ তম সভার ৯ (১) সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন।

চবি কর্মচারী সমিতির সভাপতি আনোয়ার হোসেন বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই দাবিগুলো জানিয়ে এসেছি। নানা তালবাহানা দিয়ে ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। আগামী ১০ তারিখের মধ্যে দাবি মানা না হলে আলোচনা করে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করবো।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এস এম মনিরুল হাসান বলেন, একটি স্মারকলিপি পেয়েছি। সেটি উপাচার্যের কাছে পাঠিয়ে দেবো৷ উনি দেখবেন।

  • সর্বশেষ - অন্যান্য