, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহে গুরুত্বপূর্ণ পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেন মেয়র টিটু : বিসর্জনে ব্যাপক প্রস্তুতি

  শাহ মোহাম্মদ রনি

  প্রকাশ : 

ময়মনসিংহে গুরুত্বপূর্ণ পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেন মেয়র টিটু : বিসর্জনে ব্যাপক প্রস্তুতি

ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোঃ ইকরামুল হক টিটু বৃহস্পতিবার মধ্য রাত পর্যন্ত নগরীর গুরুত্বপূর্ণ পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেছেন। গত ৩ দিন তিনি অর্ধশত দুর্গা পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেন। তিনি বিভিন্ন পূজামন্ডপের খোঁজখবর নেন এবং কমিটির নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলেন। এ সময় মসিকের প্যানেল মেয়র, বিভিন্ন কর্মকর্তা, পুরুষ ও মহিলা কাউন্সিলর, পূজা উদযাপন পরিষদের নেতা, বিভিন্ন মন্দির ও পূজা কমিটির নেতা, আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা ছাড়াও সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। অন্যদিকে ব্রহ্মপুত্র নদের কাচারীঘাট অংশে প্রতিমা বিসর্জনের জন্য নেওয়া হয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি। অন্যান্য বারের মতো এবারও নগরীর প্রতিটি পূজামন্ডপের নেতৃবৃন্দের হাতে নগদ অনুদান এবং উপহার সামগ্রী তুলে দেন জননন্দিত মেয়র।


দুর্গাবাড়ি আর্যধর্ম জ্ঞান প্রদায়িনী ধর্মসভা পরিদর্শনের সময় মেয়র বলেন, বাংলার মাটি আপনার আমার সকলের। আমাদের পরিচয় আমরা বাঙালি। প্রধানমন্ত্রীর প্রচেষ্টায় অর্জিত বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ কোনোভাবেই ক্ষুন্ন না হয় সে বিষয়ে সকলকে সচেষ্ট থাকতে হবে। সজাগ থাকতে হবে কোনো অপশক্তি যেন আমাদেরকে বিপথগামী করতে না পারে। এ সময় মেয়র প্রধানমন্ত্রীর সুস্থতার জন্য সকলকে প্রার্থনা করার আহবান জানান। তিনি বলেন, আমাদের সবার শেষ ভরসাস্থল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভালো থাকলেই সব ধর্ম-বর্ণের মানুষ ভালো থাকবেন। দুর্গাবাড়ি ধর্মসভার সভাপতি প্রফেসর বিমল কান্তি দে, সাধারণ সম্পাদক শংকর সাহা ছাড়াও কমিটির অন্যান্য নেতৃবৃন্দ এবং বিপুল সংখ্যক ভক্তবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।


মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু বৃহস্পতিবার মধ্যরাত পর্যন্ত নগরীর পন্ডিতবাড়ি পূজামন্ডপ, শিববাড়ি পূজামন্ডপ, দশভূজা পূজামন্ডপ, হরিজন পল্লী পূজামন্ডপসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেন। এ সময় মসিকের প্যানেল মেয়র-১ আসিফ হোসেন ডন, প্যানেল মেয়র-৩ সামীমা আক্তার, ৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ নিয়াজ মোর্শেদ, ১০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ তাজুল আলম, ১৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ কামাল খান, ২৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ রফিকুল ইসলাম, ১, ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনের নারী কাউন্সিলর সেলিনা আক্তার, মসিকের জনসংযোগ কর্মকর্তা শেখ মহাবুল হোসেন রাজীব, খাদ্য ও স্যানিটেশন কর্মকর্তা দীপক মজুমদারসহ অন্যান্য কর্মকর্তা, আওয়ামী লীগ, কৃষকলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগ নেতারা মেয়রের সাথে উপস্থিত ছিলেন।


শম্ভুগঞ্জ দুর্গাবাড়ি কালীবাড়ি শ্মশান দেবালয় সংঘ পরিদর্শনের সময় মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিলো অসাম্প্রদায়িক সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার। আজ জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সে স্বপ্ন বাস্তবে পরিণত হয়েছে। তিনি বলেন, একটি গোষ্ঠী আমাদের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের চেষ্টা করছে। এক সময় আমরা আমাদের ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান পালনেও শংকিত ছিলাম। সরকারের কঠোরতার কারণে আজ সে অবস্থার উত্তরণ হয়েছে। মেয়র বলেন, আমরা যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অর্জন করেছি তা বজায় রাখা আমাদেরই দায়িত্ব। এ জন্য প্রয়োজন সকলের সহযোগিতা। এ সময় ওই এলাকার বিভিন্ন পূজামন্ডপের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


খাদ্য ও স্যানিটেশন কর্মকর্তা দীপক মজুমদার শুক্রবার বিকালে দৈনিক জাগ্রত বাংলা’কে বলেন, ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের জননন্দিত মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু অন্যান্য বারের মতো এবারও নগরীর বিভিন্ন পূজামন্ডপের নেতৃবৃন্দ, পুরোহিত এবং পূজা উদযাপন পরিষদের নেতাদের সাথে মতবিনিময় করেন। দুর্গাপূজা শুরু থেকে বৃহস্পতিবার মধ্য রাত পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে তিনি নগরীর গুরুত্বপূর্ণসহ বিভিন্ন পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি পূজা কমিটির নেতৃবৃন্দ এবং পুরোহিতদের ফুলেল শুভেচ্ছা, মিষ্টি বিতরণ, করোনা মোকাবিলার জন্য স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী এবং নগদ ৫ হাজার করে টাকা উপহার দেন। এর আগে বিভিন্ন পূজামন্ডপে যাতায়াতের জন্য সড়ক সংস্কার করে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের প্রকৌশল বিভাগ।


এদিকে সোমবার বিকালে মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু প্রশাসনের কর্মকর্তাদের নিয়ে ব্রহ্মপুত্র নদের কাচারিঘাট অংশে অস্থায়ীভাবে নির্মাণ করা বিসর্জন ঘাট পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি জেলা প্রশাসন, আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তা এবং পূজা উদযাপন পরিষদের নেতাদের সাথে কথা বলেন। মেয়র বলেন, সবাই যেন নিশ্চিতে, নিরাপদে এবং স্বাচ্ছন্দ্যে প্রতিমা বিসর্জন সম্পন্ন করতে পারেন। এ জন্য বিসর্জন ঘাটকে সুন্দরভাবে তৈরী করার সবাত্মক চেষ্টা করা হয়েছে। তিনি শারদীয় দুর্গোৎসবকে নিরাপদ এবং উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপনে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আয়েশা হক, মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট তপন দে, সাধারণ সম্পাদক উত্তম চক্রবর্তী রকেট, দুর্গাবাড়ি ধর্মসভার সাধারণ সম্পাদক শংকর সাহা, মসিকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাকিল আহমেদ, প্রধান হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা অসীম সাহা, খাদ্য ও স্যানিটেশন কর্মকর্তা দীপক মজুমদার, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহব্বত আলী, কোতোয়ালি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ শাহ্ কামাল আকন্দ, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর সৈয়দ মাহবুবুর রহমান প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

  • সর্বশেষ - মহানগর