, ১০ মাঘ ১৪২৮ অনলাইন সংস্করণ

শিক্ষার্থীদের টিকা দিয়ে স্বাভাবিক ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

শিক্ষার্থীদের টিকা দিয়ে স্বাভাবিক ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকাদান কার্যক্রম শেষ পর্যায়ে। এখন ঢাকা মহানগরের ১২-১৭ বছরের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের টিকা দিয়ে স্কুল-কলেজে স্বাভাবিক পাঠদান শুরু করা হবে।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এ কথা জানিয়েছেন।

সোমবার (১ নভেম্বর) রাজধানীর মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজে ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের করোনা টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, দীর্ঘদিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখায় অনেকে আমাদের সমালোচনা করেছেন, বর্তমানে তার সুফল পাওয়া যাচ্ছে। করোনার সংক্রমণ এড়াতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মোতাবেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা ও বন্ধ রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, বর্তমানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হলেও সীমিত আকারে ক্লাস কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। স্কুল-কলেজ শিক্ষার্থীদের দ্রুত টিকা দিয়ে পাঠদান স্বাভাবিক করে তোলা হবে।

অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, বাংলাদেশের প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে টিকার আওতায় আনা হবে। আজ ঢাকায় শুরু হলো। এরপর এ কার্যক্রম জেলা পর্যায়ে শুরু হবে। পরে তা উপজেলা পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া হবে।

টিকার কোনো সংকট নেই জানিয়ে জাহিদ মালেক বলেন, আমরা ৯৬ লাখ ফাইজারের টিকা পেয়েছি। এর মধ্যে ১৪ লাখ দেওয়া হয়েছে। আমাদের আরও ৯২ লাখ পাওয়ার কমিটমেন্ট রয়েছে। ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী ছাত্র-ছাত্রীদের টিকা দিতে ৩ কোটি টিকা লাগবে। এর মধ্যে ২ কোটি কনফার্ম। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে আমাদের জানানো হয়েছে, আগামীতে আরও বেশি ফাইজার ও মডার্নার টিকা দেওয়া হবে। কাজেই আমাদের শিক্ষার্থীদের সবচেয়ে ভালো টিকা দিচ্ছি।

ফাইজারের টিকা ভালো, এমন মন্তব্য করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এই টিকা ভালো। এই টিকা আমরা কিছু দিন আগে প্রাথমিকভাবে প্রয়োগ করেছি। তাতে দেখা গেছে, খুবই ভালো ফল। কোনো রকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়নি। সবাই খুব ভালো আছে, সুস্থ আছে।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সিনিয়র সচিব লোকমান হোসেন মিয়ার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল আর মিলার, ইউএসএআইডির প্রতিনিধি, ইউনিসেফের প্রতিনিধি এবং শিক্ষা ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তারা।

  • সর্বশেষ - শিক্ষাঙ্গন