, ১৪ মাঘ ১৪২৮ অনলাইন সংস্করণ

শ্রমিকদের সুরক্ষায় ১৮.৬৬ মিলিয়ন ডলার অর্থসহায়তা দিয়েছে সরকার

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

শ্রমিকদের সুরক্ষায় ১৮.৬৬ মিলিয়ন ডলার অর্থসহায়তা দিয়েছে সরকার

শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান বলেছেন, শ্রমিকদের সামাজিক নিরাপত্তা বিবেচনায় শ্রম মন্ত্রণালয়ের অধীন কেন্দ্রীয় তহবিল ও বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ তহবিল হতে শতভাগ রপ্তানিমুখি শিল্প ও প্রাতিষ্ঠানিক-অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতের সাড়ে ২১ হাজার শ্রমিক ও তাদের পরিবারের সদস্যদের ১৮ দশমিক ৬৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার অর্থসহায়তা দিয়েছে সরকার।

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) সন্ধ্যায় ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) গভর্নিং বডির ৩৪৩তম সভায় শ্রমিকদের সামাজিক সুরক্ষা বিষয়ে তার বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী তার বক্তৃতায় করোনা মহামারির শুরুতেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় শ্রমিকদের বেতন পরিশোধের জন্য এক বিলিয়ন ডলার বরাদ্দ দেওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, সরকার একশোর বেশি সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী কর্মসূচি পরিচালনা করছে।

শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, জাতীয় সামাজিক নিরাপত্তা কর্মপরিকল্পনা ২০১৬-২০২১-এর অধীনে সরকার বেকারত্ব, দুর্ঘটনা, অসুস্থতা ও মাতৃত্ব বীমা প্রবর্তনের জন্য কাজ করছে। তিনি আইএলও’র গভর্নিং বডিতে পেশ করা বাংলাদেশে শ্রমমানের অধিকতর উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রণীত রোডম্যাপের আওতায় সামাজিক নিরাপত্তা ও শ্রমিকদের জন্য ন্যূনতম মজুরির বিষয়ে সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নেওয়ার কথা জানান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীকে সরকার গুরুত্ব দিয়ে আসছে। বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় এ বিষয়টি অধিকতর গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

শ্রম প্রতিমন্ত্রী সামাজিক নিরাপত্তা বিষয়ে আইএলও প্রস্তাবিত কর্মপরিকল্পনার প্রশংসা করে তিনটি বিষয়ের ওপর জোর দেন। প্রথমত, আইএলও প্রস্তাবিত সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচিতে সহায়তা করার জন্য অংশীদারত্ব শক্তিশালী করা বিশেষ করে সম্পদের সীমাবদ্ধতা রয়েছে এমন দেশগুলোতে; দ্বিতীয়ত, কম খরচে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি প্রণয়ন করা বিশেষ করে অপ্রাতিষ্ঠানিক খাত এবং ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের শ্রমিকের জন্য এবং তৃতীয়ত আইএলও প্রস্তাবিত কর্মপরিকল্পনাকে জাতীয় পর্যায়ে চলমান কার্যক্রমের সঙ্গে সমন্বয় করা।

এসময় মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. এহছানে এলাহী, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক মো. নাসির উদ্দিন আহমেদ ও যুগ্ম-সচিব মো. হুমায়ুন কবীর উপস্থিত ছিলেন। ভার্চুয়ালি ১ নভেম্বর শুরু হওয়া আইএলও’র গভর্নিং বডির এই সভা আগামী ১৩ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে।

  • সর্বশেষ - জাতীয়