, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ অনলাইন সংস্করণ

পাবনায় ১০ ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীকে আ.লীগ থেকে বহিষ্কার

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

পাবনায় ১০ ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীকে আ.লীগ থেকে বহিষ্কার

পাবনা সদর উপজেলা ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ও আটঘরিয়া পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার বিরুদ্ধে প্রার্থী হওয়ায় ১০ জন ও নৌকার বিদ্রোহীর পক্ষে নির্বাচন করায় একজন দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

রোববার (১২ ডিসেম্বর) রাতে পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল আহাদ বাবু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হাসান শাহীন স্বাক্ষরিত এক পত্রে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আটঘরিয়া পৌরসভার বহিষ্কৃতরা হলেন- জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য ইশারত আলী ও আটঘরিয়া পৌর আওয়ামী লীগের সদস্য আশরাফউজ্জামান জুয়েল। 

সদর উপজেলা ইউপি চেয়ারম্যান পদে বহিষ্কৃতরা হলেন- হেমায়েতপুর ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলাউদ্দিন মালিথা, দোগাছি ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আজমত আলী বিশ্বাস, দোগাছি ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী ৪, ৫, ৬ নং ওয়ার্ডের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলী হাসান, চরতারাপুর ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সিদ্দিকুর রহমান খান।

এছাড়া গয়েশপুর ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোতাহার হোসেন মুতাই, সাদুল্লাপুর ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগে সহ-সভাপতি মাজেদ আলী মোল্লা, মালঞ্চি ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জালাল উদ্দিন মোল্লা, গয়েশপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সদস্য জিন্নাহ মন্ডল, সাদুল্লাপুর ইউনিয়নের বিদ্রোহী প্রার্থী মাজেদ আলী মোল্লার পক্ষে কাজ করায় ৫ নং ওয়ার্ডের সভাপতি নায়েব আলী মোল্লা। তাদের সংগঠনের পদ থেকে বহিষ্কার ও দলীয় সাধারণ পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। 

অ্যাডভোকেট আব্দুল আহাদ বাবু বলেন, গত ২ নভেম্বর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের স্বাক্ষরিত ও প্রেরিত পত্রের নির্দেশনা এবং দলীয় গঠনতন্ত্রের ৪৭ (ঠ) ধারা লঙ্ঘনের অভিযোগে রোববার (১২ ডিসেম্বর) সংগঠনের পদ থেকে বহিষ্কার ও দলীয় সাধারণ পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

পাবনা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোশাররফ হোসেন ঢাকা পোস্টকে বলেন, সাংগঠনিক শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হওয়ায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক শৃঙ্খলাবিধি গঠনতন্ত্রের ৪৭-এর ‘ঠ’ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী আওয়ামী লীগের সব সহযোগী সংগঠনের পদ-পদবি থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

একইসঙ্গে নির্বাচনকালীন কোনো বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে বা দলের প্রার্থীর বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা ও সহযোগিতার প্রমাণ পাওয়া যায়, তাহলেও দলীয়ভাবে কঠোর সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এর আগেই তাদের বহিষ্কারের সুপারিশের চিঠি দেওয়া হয়েছিল। তারা মনোনয়ন প্রত্যাহার করেননি বিধায় দল থেকে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেনের সঙ্গে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, আগামী ২৬ ডিসেম্বর পাবনা সদর উপজেলার ১০ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ও আটঘরিয়া পৌরসভায় মেয়র পদে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

  • সর্বশেষ - সারাদেশ