, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯ অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশে এখন এক ব্যক্তির জমিদারি চলছে: জোনায়েদ সাকি

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

বাংলাদেশে এখন এক ব্যক্তির জমিদারি চলছে: জোনায়েদ সাকি

ঐতিহাসিক ফারাক্কা লং মার্চ দিবসের ৪৬তম বার্ষিকী উদযাপন করতে এসে বাংলাদেশে এখন এক ব্যক্তির জমিদারি চলছে বলে মন্তব্য করেছেন গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি।

তিনি বর্তমান সরকারের সমালোচনা করে বলেন, ‘সমস্ত রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান সারা বাংলাদেশের মানুষের ট্যাক্সের পয়সায় চলে। তাদের জনগণের নিরাপত্তা দেওয়ার কথা। তা না করে তারা জনগণের টুটি চেপে ধরে। বিনা বিচারে গুলি করে হত্যা করে।‘

তিনি আরও বলেন, ‘আইনশৃংখলা বাহিনীর হেফাজতে হত্যা ও গুম করা হয়। জনগণ কথা বললেই রাতের আঁধারে তুলে নিয়ে আসতে পারে। এ সমস্ত কিছু আজকে তারা (সরকার) করে দেখিয়েছে। এটায় তাদের জমিদারি।’

সোমবার (১৬ মে) বিকেলে রাজশাহীর লালন শাহ মুক্তমঞ্চে নদী ও পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন বাংলাদেশ আয়োজিত ঐতিহাসিক ‘ফারাক্কা লং মার্চ’ দিবস উদযাপনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

সয়াবিন তেলের বিষয়ে জোনায়েদ সাকি বলেন, নব্বই ভাগ ধর্মপ্রাণ মুসলমানের দেশ থেকে ঈদের আগে সয়াবিন তেল বাজার থেকে উধাও হয়ে গেলো। প্রত্যেকটা মানুষ কিনতে বাধ্য। সবার পকেট থেকে বাড়তি টাকা হাতিয়ে নেওয়া হলো।

সরকারের সমালোচনা করে তিনি আবারো বলেন, ‘সরকার বলছে, আমরা ব্যবসায়ীদেরকে ভরসা করে ভুল করেছিলাম। তাদের বক্তব্য আপনারা শুনেছেন।’

গণসংহতি আন্দোলনের এ নেতা বলেন, আজকের বাংলাদেশ পরিবর্তিত বিশ্ব বাস্তবতা, পরিবর্তিত ভূ-রাজনীতির বাস্তবতা। সেখানে প্রতিদিন প্রমাণ করছে গণতন্ত্র না থাকার কারণে এ সরকার বাংলার স্বাধীনতা সার্বভৌম রাখতে পারবে না। সুতরাং বর্তমান সরকারের হাতে দেশ নিরাপদ নয়। আমাদের আন্দোলন করে এই সরকারকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করতে হবে। একটা অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে এবং সেই সরকার দেশে সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ গড়ে তুলবে।

তিনি বলেন, আগামীর বাংলাদেশ স্বৈরাচারীর বাংলাদেশ না। গণতন্ত্রের বাংলাদেশ। তার জন্য এই সংবিধান ও স্বৈরাচারী এবং ফ্যাসিবাদী সাংবিধানিক কাঠামো বদলে সংবিধান সংস্কার করে নতুন গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক গঠনতন্ত্র আমাদের তৈরি করতে হবে।

জোনায়েদ সাকি বলেন, ‘শেখ হাসিনা আঠারো কোটি মানুষের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়ে সবাইকে এক কাতারে দাঁড় করিয়েছে। অথচ ভোটাধিকার ও গণতন্ত্র একসূত্রে গাঁথা।’

এসময় অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ পানি সম্পদ পরিকল্পনা সংস্থার সাবেক মহাপরিচালক প্রকৌশলী ম. ইনামূল হক, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী হাসনাত কাইয়ুম, ফারাক্কা লং মার্চ উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক মাহবুব সিদ্দিকী, রাজশাহী জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কাশেম, নদী ও পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হোসনে আলী পেয়ারা, বাসসের রাজশাহী জেলা শাখার সমন্বয়ক আফজাল হোসেন, অ্যাডভোকেট মুরাদ মোরশেদ, জিন্নাত আরা সুমু, রিদম শাহরিয়ারসহ প্রমুখ।

  • সর্বশেষ - সারাদেশ