ময়মনসিংহ, , ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

‘করোনায় মৃতদেহ পুড়িয়ে ফেলার বিজ্ঞপ্তি তড়িঘড়ি করে প্রত্যাহার

  অনলাইন ডেস্ক

  প্রকাশ : 

‘করোনায় মৃতদেহ পুড়িয়ে ফেলার বিজ্ঞপ্তি তড়িঘড়ি করে প্রত্যাহার
ফাইল ছবি

করোনা আক্রান্তের মৃতদেহ সমাধিস্থ করা চলবে না। দাহ করতে হবে। বিজ্ঞপ্তি জারি করে একথা জানিয়ে দিয়েছিলো ভারতের বৃহন্মুম্বাই মিউনিসিপ্যালিটি কর্পোরেশন (বিএমসি)। তাদের এমন বিজ্ঞপ্তিতে বিতর্ক দানা বাছে। দেহ দাহ করার ক্ষেত্রেও কিছু নির্দিষ্টতা বেধে দেওয়া হয়েছিলো। তবে বিতর্কে মুখে পড়ে তড়িঘড়ি সেই নির্দেশনা প্রত্যাহারও করে নেওয়া হয়।

ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, করোনা ভাইরাসে সংক্রামিত হয়ে মৃত্যুর হার সর্ব্বোচ্চ মহারাষ্ট্রেই। আক্রান্তের সংখ্যাও এখানে সবচেয়ে বেশি। বহু ক্ষেত্রে মৃতদেহের সৎকার নিয়ে সমস্যা তৈরি হচ্ছে। দেহ স্পর্শ করতে নিষেধ করছেন বিশেষজ্ঞরা। এদিন সৎকার নিয়ে স্পষ্ট নির্দেশিকা জারি করল বিএমসি।

বৃহন্মুম্বাই মিউনিসিপ্যালিটি কর্পোরেশনের কমিশনার প্রবীণ পদদেশির জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ধর্ম নির্বিশেষে মৃতদেহ দাহ করতে হবে। সমাধিস্থ করা একেবারেই চলবে না। তবে দাহ করতেও পাঁচজনের বেশি জমায়েত করা চলবে না। বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, কোনও আক্রান্তের মৃতদেহ কবর দিতে হলে তা বিএমসি এলাকার বাইরে। এই বিজ্ঞপ্তি জারি হতেই তীব্র বিতর্ক তৈরি হয়। এরপর তড়িঘড়ি মন্ত্রী হস্তক্ষেপে বিজ্ঞপ্তি তুলে নেওয়া হয়।

মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী নওয়াব মালিক জানান, বিএমসির জারি করা নির্দেশিকা প্রত্যাহার করা হয়েছে।


  • সর্বশেষ - করোনা আপডেট