, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯ অনলাইন সংস্করণ

উইন্ডিজে ওয়ানডে সিরিজে ছুটি চেয়েছেন সাকিব

  স্পোর্টস ডেস্ক

  প্রকাশ : 

উইন্ডিজে ওয়ানডে সিরিজে ছুটি চেয়েছেন সাকিব

উইন্ডিজ সফর শুরুর আগেই আলোচনা ছিল সাকিব আল হাসানকে ঘিরে। ক্যারিবীয় সফরে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি খেললেও ওয়ানডে সিরিজ খেলবেন না এ বাঁহাতি অলরাউন্ডার।

সিরিজটি ওয়ানডে সুপার লিগের অংশ নয়, এ জন্য সে সময় ছুটি নিতে চান সাকিব। তবে তিন ফরম্যাটের স্কোয়াডেই থাকে তার নাম। সফরে যাওয়ার আগে সাকিব নিজেই জানান, সব ফরম্যাট খেলবেন তিনি।

তবে এখন শোনা যাচ্ছে ভিন্ন কথা। ওয়ানডেতে ছুটি চেয়ে আবেদন করেছেন সাকিব। সাকিবের ছুটি চাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করলেও এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। তবে আজ বুধবার মিরপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে ইতিবাচক ভাবনার কথা জানালেন, বিসিসি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। 

পাপন বলেন, সাকিব যাওয়ার আগে বলেছিল টেস্ট খেলবে না, ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি খেলবে। আমার সাথে বসার পর বলল খেলবে টেস্ট এবং ওকে তো অধিনায়কই করা হলো। শুনেছি জালাল ভাইকে (জালাল ইউনুস, ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান) বলেছে, ও ওয়ানডে সিরিজে নাও খেলতে পারে। আগেই বলেছে। যেহেতু এখনো বোর্ডের সাথে কথা বলেনি (আনুষ্ঠানিকভাবে), হয়ত আজ-কালকের মধ্যে জানলে বুঝতে পারব।’

বোর্ড মনে করছে, সুপার লিগের অংশ নয় এমন সিরিজগুলোতে সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবালদের মতো অভিজ্ঞ ক্রিকেটাররা না খেলতে চাইলে বরং দেশের ক্রিকেটই লাভবান হবে। এতে সুযোগ পাবে নতুনরা। ঝালিয়ে নেওয়া যাবে তরুণদের।

পাপনের ব্যাখ্যা, ‘এটাকে আনুষ্ঠানিক ধরতেও পারেন। ও নাকি মৌখিকভাবে জালাল ভাইকে বলেছে, এটা জালাল ভাই বলেছে আমাকে।’
 
‘যেগুলো র‍্যাঙ্কিংয়ের (আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ, ওয়ানডে সুপার লিগ অর্থে) অংশ না, এসব সিরিজে সিনিয়র ক্রিকেটাররা ছুটি চাইলে ভালো। আমরাও তখন নতুন ছেলেদের সুযোগ দেওয়ার সুযোগ পাব।’

সঙ্গে যোগ করে পাপন বলেন, ‘জানতে হবে ওর জায়গায় খেলোয়াড় আছে কি না বা কারা আছে? সব কিছু চিন্তা করে আমাদের মাথায় আছে। ওদের বিরতি দরকার।’

২ ও ৩ জুলাই প্রথম দুই টি-টোয়েন্টি হবে ডোমিনিকায়। ৭ জুলাই গায়ানায় অনুষ্ঠিত হবে শেষ টি-টোয়েন্টি। এরপর তিনটি ওয়ানডে ম্যাচ হবে গায়ানাতেই। এই সিরিজের ম্যাচগুলো হবে ১০, ১৩ ও ১৬ জুলাই।

  • সর্বশেষ - খেলাধুলা