, ২১ আশ্বিন ১৪২৯ অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ সীমান্তে সোনার বৃহত্তম চালান জব্দ করেছে বিএসএফ

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

  প্রকাশ : 

বাংলাদেশ সীমান্তে সোনার বৃহত্তম চালান জব্দ করেছে বিএসএফ

পশ্চিমবঙ্গের বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত এলাকা থেকে ২১ কোটির টাকার বেশি মূল্যের প্রায় সাড়ে ৪১ কেজি সোনা উদ্ধার করেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। পশ্চিমবঙ্গের বনগাঁর গুনারমাথ গ্রামের সীমান্ত এলাকা থেকে এই সোনা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিএসএফ।

ভারতের ইংরেজি দৈনিক দ্য স্টেটসম্যান বলছে, গুনারমাথ সীমান্ত ফাঁড়ির আওতাধীন এলাকায় চোরাকারবারীদের আন্তঃসীমান্ত গতিবিধির গোপন গোয়েন্দা তথ্য পেয়ে বিএসএফের দক্ষিণবঙ্গ ফ্রন্টিয়ারের ১৫৮ ব্যাটালিয়ন বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক সীমান্ত এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় ৪১ দশমিক ৪৯ কেজি সোনা উদ্ধার করেন বিএসএফ জওয়ানরা।

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে ভারতীয় আইন প্রয়োগকারী সংস্থাটির এটিই এযাবৎকালের সবচেয়ে বড় সোনা উদ্ধারের ঘটনা। 

বিএসএফের সদস্যরা ৭ থেকে ৮ জন সন্দেহভাজন চোরাকারবারীকে কাঠের তৈরি নৌকায় করে ইছামতি নদী পেরিয়ে আন্তর্জাতিক সীমান্ত অতিক্রম করতে দেখেন। এ সময় চোরাকারবারীরা কয়েকটি ব্যাগ নিয়ে ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করেন।

পরে বিএসএফের সদস্যরা চ্যালেঞ্জ জানালে চোরাকারবারীরা হামলার চেষ্টা করেন। এর এক পর্যায়ে চোরাকারবারীরা নদীতে লাফিয়ে বাংলাদেশে ঢুকে পড়লে ঘটনাস্থল থেকে কয়েকটি ব্যাগ উদ্ধার করেন বিএসএফের সদস্যরা।

বিএসএফ বলছে, ওই এলাকায় ব্যাপক তল্লাশি চালিয়ে পাঁচটি ব্যাগ জব্দ করা হয়েছে। এসব ব্যাগ থেকে ৩২১টি সোনার বিস্কুট, চারটি সোনার বার ও একটি সোনার মুদ্রা এবং চারটি মোবাইল ফোন, প্যাকিং সামগ্রী ও বাংলাদেশি সংবাদপত্র উদ্ধার করা হয়।

চোরাকারবারের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে বিএসএফ। বিএসএফের সাউথ বেঙ্গল ফ্রন্টিয়ারের ডিআইজি অমেরিশ আর্য বলেছেন, ‘পশ্চিমবঙ্গ-বাংলাদেশ সীমান্তে এটিই সবচেয়ে বড় সোনা উদ্ধারের ঘটনা। বাংলাদেশের চোরাকারবারীদের কাছ থেকে চালানটি আনা হয়েছিল এবং ভারতীয় সহযোগীরা তাদের সহায়তা করেছে। আমরা এখনও তদন্ত করছি।’

  • সর্বশেষ - আন্তর্জাতিক