ময়মনসিংহ, , ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

জনমতকে কিছুটা গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে : ফখরুল

  অনলাইন ডেস্ক

  প্রকাশ : 

জনমতকে কিছুটা গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে : ফখরুল
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ছবি: সংগৃহীত

করোনা ভাইরাসের কারণে আর্থিক ক্ষতি মোকাবিলায় সরকারের ৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার আর্থিক প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণার মাধ্যমে ‘জনমতকে কিছুটা গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে’ বলে উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, গরিব মানুষের জন্য অনুদান নয়, ব্যবসায়ীদের জন্য ঋণ প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এটা দিয়ে চলমান সংকট নিরসন হবে না। আসলে এটা পুরোটা দিয়েছে ঋণ। এখানে অনুদান বলতে কিছুই নেই।

রবিবার বিকালে উত্তরায় নিজ বাসায় সাংবাদিকদের কাছে এসব কথা বলেন মির্জা ফখরুল। ফখরুল বলেন, এটাকে আমরা তখনই পজিটিভ বলতে পারতাম, যদি দেখতাম যে আসল সমস্যা সমাধান করার জন্য তিনি উদ্যোগী হয়েছেন। অর্থাৎ, সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ, কৃষকদের জন্য কোনও কথা প্রধানমন্ত্রীর প্যাকেজে নেই।

মির্জা ফখরুল বলেন, আসলে এটা পুরোটা তো দিয়েছে ঋণ। এখানে অনুদান বলতে কিছুই নেই। সব ঋণের প্যাকেজ। আমরা বলেছি যে সাধারণ মানুষকে ১৫ হাজার কোটি টাকা অনুদান দিতে হবে। কিন্তু সেই বিষয়ে এখানে সুনির্দিষ্ট কিছু বলা নেই। সরকারের মধ্যে সামগ্রিকভাবে সমন্বয়নহীনতা রয়েছে বলে উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, সবক্ষেত্রে সমন্বয়নহীনতা, দায়িত্ব পালনে উদাসীনতা রয়েছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, প্রধানমন্ত্রীর এই প্যাকেজ ঘোষণায় আমরা কিছুটা হলেও আশস্ত হলাম যে তারা জনমতকে কিছুটা গুরুত্ব দেওয়া শুরু করেছে। কিন্তু দুর্ভাগ্যের বিষয় হচ্ছে, আমরা যে বিষয়গুলো উল্লেখ করেছিলাম এবং যা করা অত্যন্ত জরুরি, সেই বিষয়গুলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কথায় সেভাবে আসেনি। বিশেষ করে ‘দিন আনে দিন খায়’ এই সংখ্যাটা বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে তাদের নিয়ে কোনও কথা আমরা দেখতে পাইনি। এই খাতে বিএনপি ১৫ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়ার কথা বলেছে। অথচ প্রধানমন্ত্রী এই নিয়ে সুনির্দিষ্ট কোনও কথা বলেননি। তিনি বলেছেন, সামাজিক সুরক্ষা বলয়টা আরও বড় করা হবে’। তবে কত বড় হবে বা তার জন্য কত টাকা বরাদ্দ করা হবে, এই নিয়ে কিছু বলা হয়নি।

দেশ পুরোপুরি লকডাউন করুন: বিএনপি মহাসচিব বলেন, দেশে এখন পুরোপুরি লকডাউন করা উচিত। যে ভয়াবহতা আসছে সরকার তা এখনও অনুধাবন করতে পারছে না। অলরেডি শনিবার চেয়ে রবিবার আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে। এটা বাড়তেই থাকবে। এটা উপলব্ধি করতে হবে। আর যদি মনে করি, ১৯৭১ সালে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি, ওভাবেই পরাজিত করবো। আমরা অবশ্যই পরাজিত করবো, তবে সেই অস্ত্র কোথায়। চিকিৎসা সামগ্রী কোথায়।

মির্জা ফখরুল বলেন, যে ভয়াবহতা আসছে তা এখনো সরকার অনুধাবন করতে পারছে না। ভারত একবারে ২১ দিন লকডাউন করেছে। ইউরোপ, আমেরিকা সব লকডাউনের পথে চলে যাচ্ছে। কারণ সামাজিক দূরত্ব ছাড়া এই মুর্হতে কোনো বিকল্প নেই। সেটাও সরকার করছে না।

  • সর্বশেষ - রাজনীতি