, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ অনলাইন সংস্করণ

কমিশন করে সংসদ এলাকায় স্বাধীনতা বিরোধীদের কবর সরানোর দাবি

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

কমিশন করে সংসদ এলাকায় স্বাধীনতা বিরোধীদের কবর সরানোর দাবি

একটি কমিশন গঠন করে সংসদ ভবন এলাকা থেকে স্বাধীনতা বিরোধীদের কবর সরানোর দাবি করেছেন সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই-আলম-চৌধুরী।

বুধবার (২৪ আগস্ট) জাতীয় সংসদ ভবনে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে এক আলোচনা সভায় আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের সম্পাদক এই দাবি করেন। 

সংসদ সচিবালয়ের এই শোক সভার আয়োজন করে। পরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্টের শহীদদের স্মরণে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

চিফ হুইপ বলেন, প্রতিবছর আমরা সংসদের পক্ষ থেকে শোক দিবসের আলোচনা করি। এই সংসদ সেদিক থেকে পবিত্র হয়েছে। তবে আরেকটি অপবিত্রতা আমাদের বহন করতে হচ্ছে। সংসদ থেকে এখনো যুদ্ধাপরাধী, রাজাকার নিশ্চিহ্ন হয়নি। আমি স্পিকারসহ সকলের কাছে আবেদন করছি, একটি কমিশন গঠন করে সংসদ থেকে স্বীকৃত রাজাকার, যুদ্ধাপরাধীদের কবর সরিয়ে ফেলা হোক।

প্রসঙ্গত, সংসদ এলাকায় সাতটি কবর রয়েছে। সাবেক রাষ্ট্রপতি আবদুস সাত্তার, সাবেক প্রধানমন্ত্রী শাহ আজিজুর রহমান ও আতাউর রহমান খান, সাবেক মন্ত্রী মশিউর রহমান যাদু মিয়া, মুসলিম লীগ নেতা খান এ সবুর, সাহিত্যিক ও সাংবাদিক আবুল মনসুর আহমদ এবং পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের স্পিকার তমিজউদ্দীন খানের কবর রয়েছে সেখানে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরোধিতাকারী শাহ আজিজ ও খান এ সবুরের কবর সংসদ এলাকা থেকে সরানোর দাবি বহু দিনের।

এ ছাড়া সংসদ কম্পাউন্ডের পাশে চন্দ্রিমা উদ্যানে রয়েছে জিয়াউর রহমানের কবর। ১৯৮১ সালে রাষ্ট্রপতি থাকা অবস্থায় জিয়া নিহত হওয়ার পর প্রথমে তাকে চট্টগ্রামে সমাহিত করা হয়েছিল, পরে সেখান থেকে কবর তুলে আনা হয় ঢাকায়।

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার সংসদ ভবন এলাকায় নকশা ভেঙে গড়ে তোলা সব স্থাপনা সরিয়ে ফেলার ঘোষণা দিয়েছে। বলা হয়েছিল সংসদ ভবনের স্থপতি লুই আই কানের নকশা দেশে আসার পর এ ব্যাপারে উদ্যোগ নেওয়া হবে। তবে নকশা আসার পর কয়েক বছর পেরিয়ে গেলেও এখনো কোনও উদ্যোগ নেওয়া হয়নি।

  • সর্বশেষ - মিডিয়া