, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ অনলাইন সংস্করণ

এডিপি কমেছে বাস্তবায়নের হার, খরচের খাতাই খুলতে পারেনি ৩৬ মন্ত্রণালয়

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

এডিপি কমেছে বাস্তবায়নের হার, খরচের খাতাই খুলতে পারেনি ৩৬ মন্ত্রণালয়

বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসুচি (এডিপি) বাস্তবায়নের হার উল্লেখযোগ্যভাবে কমেছে। গত চার বছরের মধ্যে বর্তমানে এডিপির বাস্তবায়ন হার সবচেয়ে কম, যা করোনা মহামারি চলাকালীনও এর চেয়ে বেশি ছিল।

চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের হার মাত্র ০.৯৬ শতাংশ। করোনাকালীন ও তার পরবর্তী দুই বছরেও এ হার ছিল সোয়া এক থেকে দুই শতাংশের কাছাকাছি। ৫৬টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগের মধ্যে ৩৬টিই বিদেশি অর্থ খরচের খাতা খুলতেই পারেনি।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ণ পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

আইএমইডির সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের প্রথম মাসে দুই লাখ ৫৬ হাজার তিন কোটি টাকার এডিপির মধ্যে খরচ হয়েছে মাত্র দুই হাজার ৪৫৫ কোটি টাকা। টাকার অংক ও বাস্তবায়ন হার দুদিক থেকেই প্রথম মাসের এডিপি আগের তিন বছরের চেয়ে কম।

আগের ২০২১-২২ অর্থবছরের একই সময়ে উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের হার ছিল ১.১৪ শতাংশ ও ব্যয় ছিল দুই হাজার ৬৯৩ কোটি টাকা। ২০২০-২১ অর্থবছরের জুলাইয়ে খরচ ছিল তিন হাজার ২৫৩ কোটি ৬৯ লাখ টাকা ও বাস্তবায়নের হার ছিল ১.৫২ শতাংশ।

এমনকি ২০১৯-২০ অর্থবছরে করোনা মহামারি চলাকালীন ব্যয় ছিল তিন হাজার ৯৫০ কোটি ৬৫ লাখ টাকা ও বাস্তবায়ন হার ছিলে ১.৮৪ শতাংশ। অথচ এখন পরিস্থিতি তুলনামূলক স্বাভাবিক হলেও উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের হার এক শতাংশও হয়নি।

প্রথম মাসের খরচের মধ্যে সরকারের নিজস্ব তহবিলের এক হাজার ৩২২ কোটি টাকা, প্রকল্প সাহায্য থেকে ৯৭৬ কোটি টাকা ও বাস্তবানকারী সংস্থাগুলোর নিজস্ব কোষাগার থেকে খরচ হয়েছে ১৫৭ কোটি টাকা।

মোট ব্যয়ের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৯৮৪ কোটি টাকা খরচ করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। বেশ কয়েকটি মন্ত্রণালয় খরচের খাতাই খুলতে পারেনি। ১৮টি মন্ত্রণালয় জিওবি অর্থায়ন প্রকল্পের টাকা ব্যয় করতে পারেনি।

অন্যদিকে, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ, ধর্ম মন্ত্রণালয়, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়, সেতু বিভাগ, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন বিভাগ, স্থানীয় সরকার বিভাগ নিজস্ব টাকাও খরচ করতে পারেনি।

সর্বোচ্চ বরাদ্দপ্রাপ্তদের মধ্যে কৃষি মন্ত্রণালয়ও অর্থ ব্যয় করতে পারেনি।

  • সর্বশেষ - অর্থ-বাণিজ্য