, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ অনলাইন সংস্করণ

তাসকিন না নাসুম? দ্বিধায় টিম ম্যানেজমেন্ট

  স্পোর্টস ডেস্ক

  প্রকাশ : 

তাসকিন না নাসুম? দ্বিধায় টিম ম্যানেজমেন্ট

হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোর অনুপস্থিতিতে টেকনিক্যাল কনসালটেন্ট শ্রীধরন শ্রীরাম ও সব্যসাচী ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বে নতুন বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজ কিংবা জিম্বাবুয়ে সফর নয়, আসরটাও ভিন্ন; এশিয়া কাপ। সবমিলিয়ে নতুনের আবাহন। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরুর অপেক্ষা।

আর মাত্র কয়েক ঘন্টা পরই এশিয়া কাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামবে সাকিব আল হাসানের বাংলাদেশ। টাইগারদের শরীরী ভাষা, পারফরম্যান্স ও পরিণতি দেখতে উন্মুখ কোটি ভক্ত-সমর্থক। খেলা শুরুর আগে একাদশ নিয়ে সবার কৌতূহল।

ভেতরের খবর আজ শারজা স্টেডিয়ামের উদ্দেশ্যে টিম বাস ছাড়ার আগে বৈঠকে ঘোষিত হবে প্রথম ম্যাচের একাদশ। তবে জানা গেছে, টিম কম্বিনেশন নিয়ে একটু দ্বিধা-সংশয় আছে। তাই একাদশ আগেভাগে করা ঠিক হয়নি। ব্যাটিং নিয়ে তেমন কোন সংশয় নেই টিম ম্যানেজমেন্টের।

এনামুল হক বিজয়ের সঙ্গে শেষ মুহূর্তে সুযোগ পাওয়া নাইম শেখকে দিয়ে ইনিংসের সূচনা করার সিদ্ধান্ত একরকম পাকা। আর মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতকে ধরে ৭ ব্যাটার খেলানো মোটামুটি নিশ্চিত বলেই জানা গেছে। অধিনায়ক সাকিবের তিন নম্বরে খেলাও মোটামুটি চূড়ান্ত। আফিফ হোসেন ধ্রুবকে চারে খেলিয়ে পাঁচে মুশফিক, ছয়ে মোসাদ্দেক ও রিয়াদকে সাত নম্বরে খেলানোর চিন্তা ভাবনা চলছে।

এই ব্যাটিং লাইনআপের সঙ্গে দুই অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও শেখ মেহেদি হাসান যুক্ত হবেন বলে শোনা যাচ্ছে। সাইফউদ্দিনের অন্তর্ভুিক্ততে বাড়তি বোলার খেলানোর পথ হয়েছে প্রশস্থ। বাকি দুই পজিশনে আরও দুই পেসার খেলানো হতে পারে।

বাঁহাতি মোস্তাফিজুর রহমান ও দ্রুতগতির তাসকিন থাকতে পারেন একাদশে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজে সুবিধা করতে না পারা তাসকিনকে খেলানো না হলে মোস্তাফিজ ও সাইফউদ্দিনকে নিয়েই গঠিত হতে পারে পেস ডিপার্টমেন্ট। তখন আরও একজন বাড়তি স্পিনার খেলানোর সুযোগ থাকবে।

নাসুম আহমেদ বা মেহেদি হাসান মিরাজের কেউ একজন হতে পারেন সেই স্পিনার। তাহলে কী দাঁড়ালো? খুব সম্ভাবনা দুই পেসার খেলানোর। তাতে করে সাকিবের সঙ্গে শেখ মেহেদি ও নাসুম আহমেদের খেলার সম্ভাবনা রয়েছে। আর পেসার সংখ্যা বাড়িয়ে তিনে নিয়ে গেলেও সাকিবের সঙ্গে অফস্পিনার শেখ মেহেদির দলভুক্তি মোটামুটি নিশ্চিত।

এখন দেখার বিষয় পেসার তিনজন নাকি দুইজন খেলেন? শারজাহর পিচ বরাবরই ব্যাটিং সহায়ক। তবে শতভাগ ব্যাটিংস্বর্গ নয়। সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বিশেষ করে দ্বিতীয় সেশনের মাঝামাঝি সময়ে গিয়ে স্লথ হতে থাকে। সে কারণে বাংলাদেশ শেষ পর্যন্ত তিন পেসার ফর্মুলায় যাবে কি না সন্দেহ।

কারণ তিন পেসার নিয়ে মাঠে নামার অর্থ হলো তাসকিনের অন্তর্ভক্তি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটিতে তাসকিন সুবিধা করতে পারেননি। ৪ ওভারে ৪২ রান দিয়ে উইকেট পাননি। সিরিজে পরের দুই ম্যাচে একাদশে জায়গা হয়নি।

তাসকিনের বদলে সুযোগ পেয়ে সমীহ জাগানো বোলিং করেন হাসান মাহমুদ। কিন্তু ইনজুরির কারণে এশিয়া কাপ স্কোয়াডে নেই হাসান। তাই তিন পেসার নিয়ে দল মাঠে নামলে তাসকিনকে খেলানো ছাড়া পথ নেই। তাসকিনকে খেলানো নিয়ে একটা সংশয় থাকলেও তাকে খেলানোর পক্ষেও আছে যুক্তি।

তাসকিন না খেললে ৩ স্পিনার নিয়ে দল সাজানো হলে সাকিব ও শেখ মেহেদির সঙ্গে নাসুমের দলভুক্তির সম্ভাবনা বেড়ে যায়। নাসুম জিম্বাবুয়ে সফরে বেদম মার খেয়েছেন। প্রথম ম্যাচে ৪ ওভারে বিনা উইকেটে ৩৮ রান দেওয়া নাসুম শেষ খেলায় মাত্র ২ ওভারে দিয়ে বসেন ৪০ রান।

তাকে এশিয়া কাপে আফগানিস্তানের সঙ্গে খেলানোয় থাকছে রাজ্যের ঝুঁকি। তবে যেহেতু মার্চে আফগাস্তিানের সঙ্গে ঘরের মাঠে নাসুমের আছে ম্যাচ উইনিং এক স্বপ্নীল স্পেল (চার ওভারে ১০ রানে ৪ উইকেট), তাই তাকে বাইরে রাখার আগে ভাবতে হচ্ছে কয়েকবার।

সবমিলিয়ে একাদশ সাজাতে গিয়ে একটু দ্বিধাদ্বন্দ্বেই ভুগছে টিম ম্যানেজমেন্ট। দেখা যাক শেষ পর্যন্ত পঞ্চম বোলিং অপশন হিসেবে কাকে বেছে নেয়া হয়, পেসার তাসকিন নাকি স্পিনার নাসুম?

  • সর্বশেষ - খেলাধুলা