ময়মনসিংহ, , ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

করোনা পরীক্ষায় পিছিয়ে বাংলাদেশ

  অনলাইন ডেস্ক

  প্রকাশ : 

করোনা পরীক্ষায় পিছিয়ে বাংলাদেশ
ফাইল ছবি

বিশ্বে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে নতুন করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) বিস্তার। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) বলছে, এই মহামারি ঠেকাতে দেশগুলোকে টেস্ট বা পরীক্ষার ওপর সর্বোচ্চ জোর দিতে হবে। এই পরীক্ষা হলো করোনা প্রতিরোধের প্রথম এবং গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। কিন্তু বিশ্বের অনেক দেশের তুলনায় বাংলাদেশে করোনা পরীক্ষার হার অনেক কম। এমনকি দক্ষিণ এশিয়ায় প্রতি ১০ লাখ মানুষের মধ্যে পরীক্ষার দিক থেকে বাংলাদেশ সর্বনিম্ন।

বিশ্বে করোনা ভাইরাসে গতকাল পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন সাড়ে ১৩ লাখের বেশি মানুষ। মৃত্যু হয়েছে প্রায় ৭৬ হাজার মানুষের। প্রতিদিনই এই সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। দেশগুলোতে করোনা পরীক্ষার পরিধি বাড়ানো হয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশে এই সংখ্যা এখনো অনেক কম। গতকাল মঙ্গলবার ঢাকায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ৭৯২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এটিই এযাবত্কালের সর্বোচ্চ সংখ্যক নমুনা পরীক্ষা। এ ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের পরিসংখ্যানভিত্তিক অনলাইন ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যে দেখা গেছে, বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত প্রতি ১০ লাখ মানুষের মধ্যে মাত্র ২৬ জনের করোনা পরীক্ষা হয়েছে।

অথচ দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভুটানে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা মাত্র ৫ জন। দেশটিতে প্রতি ১০ লাখ মানুষের মধ্যে ১ হাজার ৫১১ জনের পরীক্ষা হয়েছে। প্রতিবেশী দেশ ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা এখন পর্যন্ত ৪ হাজার ৯০৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১৩৯ জনের। দেশটিতে প্রতি ১০ লাখ মানুষের মধ্যে ১০২ জনের করোনা পরীক্ষা হয়েছে। পাকিস্তানে আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫৫ জনের। আর দেশটিতে প্রতি ১০ লাখ মানুষের মধ্যে ১৭৭ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। দক্ষিণ এশিয়ার আরেক দেশ শ্রীলঙ্কায় আক্রান্তের সংখ্যা ১৮৩। দেশটিতে প্রতি ১০ লাখে ১৫২ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

বাংলাদেশে পরীক্ষা হার কমের বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ ইত্তেফাককে বলেন, ‘এটি নিয়ে উদ্বিগ্ন বা চিন্তিত হওয়ার কিছু নেই। অনেক দেশে সংক্রমণ আগে শুরু হওয়ায় তারা আগে থেকেই পরীক্ষা শুরু করেছে। বাংলাদেশে আমরা করোনা পরীক্ষা সম্প্রসারণ করছি। সব দেশ ডব্লিউএইচের নির্দেশিত পলিমারেইজ চেইন রিঅ্যাকশন (পিসিআর) টেস্ট করছে না। কোনো কোনো দেশ র্যাপিড টেস্টও করছে, আমরা পিসিআর টেস্ট করছি। যা পরীক্ষায় সঠিক ফল দেবে। সহসাই দেখা যাবে আমাদের পরীক্ষা সারাদেশে ছড়িয়ে পড়বে। তখন আমরা প্রকৃত পরিস্থিতি মূল্যায়ন করতে পারব।’

  • সর্বশেষ - করোনা আপডেট