, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ অনলাইন সংস্করণ

ব্রিটিশ রাজপরিবারে কারা আছেন?

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

  প্রকাশ : 

ব্রিটিশ রাজপরিবারে কারা আছেন?

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ ৯৬ বছর বয়সে মৃত্যুর পর রাজসিংহাসনের দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন তার বড় ছেলে রাজা তৃতীয় চার্লস।

এ বছরের শুরুতে রানি প্লাটিনাম জুবিলি অর্থাৎ রাজ্যশাসনের সত্তর বছর উদযাপন করেছিলেন। ব্রিটিশ রাজতন্ত্রের ইতিহাসে তিনিই সবচেয়ে লম্বা সময় এ দায়িত্ব পালন করেছেন।

তবে রানির মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গেই রাজসিংহাসনে আসীন হয়েছেন সাবেক প্রিন্স অব ওয়েলস চার্লস, যিনি এখন থেকে রাজা তৃতীয় চার্লস নামে পরিচিত হচ্ছেন।

রাজা কীভাবে ক্ষমতা পান

উত্তরাধিকারের ক্রমই ঠিক করে দেয় রাজা বা রানীর মৃত্যু বা পদত্যাগের পর রাজপরিবারের কোন সদস্য রাজা হিসেবে দায়িত্ব নেবেন।

যেমন- রানি এলিজাবেথের প্রথম সন্তান চার্লস যেমন তার মায়ের মৃত্যুর পর রাজা হলেন আর তার স্ত্রী ক্যামিলা হলে কুইন কনসর্ট।

রাজপরিবারের উত্তরাধিকারের নিয়ম ২০১৩ সালে সংশোধন করা হয়েছিল এটা নিশ্চিত করতে যে ছেলেরা তাদের বড় বোনকে টপকিয়ে কর্তৃত্ব পাবে না।

এদিকে রাজা চার্লসের উত্তরাধিকার তার বড় সন্তান প্রিন্স উইলিয়াম। যিনি তার বাবার ডিউক অব কর্ণওয়াল পদবী পেয়েছেন। কিন্তু তিনি স্বতঃস্ফূর্তভাবেই প্রিন্স অব ওয়েলস হবেন না। এটি রাজা যদি তাকে অর্পণ করেন তাহলেই তিনি পাবেন।

প্রিন্স উইলিয়ামের বড় সন্তান প্রিন্স জর্জ রাজসিংহাসনের দ্বিতীয় উত্তরাধিকার আর তার কন্যা প্রিন্সেস শার্লট তৃতীয়।

ব্রিটিশ রাজপরিবারে কারা আছেন?

রাজপরিবারে আর কারা আছেন?

>> দ্য ডিউক অব কর্নওয়াল অ্যান্ড ক্যামব্রিজ (প্রিন্স উইলিয়াম) রাজা চার্লস এবং তার প্রথম স্ত্রী ডায়ানা, প্রিন্সেস অব ওয়েলস- এর প্রথম সন্তান। তার স্ত্রী দ্যা ডাচেস অব কর্নওয়াল অ্যান্ড ক্যামব্রিজ (ক্যাথরিন)। তাদের তিন সন্তান - প্রিন্স জর্জ, প্রিন্সেস শারলট ও প্রিন্স লুই।

>> দ্য প্রিন্সেস রয়্যাল (প্রিন্সেস অ্যান) ছিলেন রানির দ্বিতীয় সন্তান এবং একমাত্র কন্যা। তিনি বিয়ে করেছেন ভাইস অ্যাডমিরাল টিমোথি লরেন্সকে। তার প্রথম স্বামী ক্যাপ্টেন মার্ক ফিলিপসের সঙ্গে দুজন সন্তান আছে - পিটার ফিলিপস অ্যান্ড জারা টিনডাল।

>> দ্য আর্ল অব ওয়েসেক্স (প্রিন্স এডওয়ার্ড) রানির কনিষ্ঠ সন্তান। তিনি বিয়ে করেছেন কাউন্টেস অব ওয়েসেক্সকে (সোফি রাইস-জোনস)। তাদের দুজন সন্তান - লুই ও জেমস মাউন্টব্যাটেন উইন্ডসর।

>> দ্যা ডিউক অব ইয়র্ক (প্রিন্স এন্ড্রু) রানির দ্বিতীয় সন্তান। তারও সাবেক স্ত্রী দ্য ডাচেস অব ইয়র্ক-এর (সারাহ ফার্গুসন) দুই কন্যা - প্রিন্সেস বিয়েট্রিস এবং প্রিন্সেস ইউজেনি। প্রিন্স এন্ড্রু ২০১৯ সালে রাজকীয় কাজ থেকে সরে দাঁড়ান ভার্জিনিয়া জিফরেকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ নিয়ে একটি বিতর্কিত সাক্ষাৎকারের পর। দুই হাজার বাইশ সালের ফেব্রুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে মিস জিফরে মামলা করার পর তিনি এটি নিষ্পত্তির জন্য অর্থ দিয়েছিলেন। তবে কত দিয়েছিলেন সেটি প্রকাশ করা হয়নি।

>> দ্য ডিউক অব সাসেক্স (প্রিন্স হ্যারি) উইলিয়ামের ছোটো ভাই। তিনি বিয়ে করেছেন ডাচেস অব সাসেক্সকে (মেগান মার্কেল)। তাদের দুই সন্তান - আর্চি ও লিলিবেট। দুই হাজার কুড়ি সালে তারা রাজকীয় দায়িত্ব ত্যাগ করে যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান।

  • সর্বশেষ - আন্তর্জাতিক