, ২৬ মাঘ ১৪২৯ অনলাইন সংস্করণ

শচীন দেব বর্মন ও সালমা খাতুনের জন্ম

  ফিচার ডেস্ক

  প্রকাশ : 

শচীন দেব বর্মন ও সালমা খাতুনের জন্ম

মানুষ ইতিহাস আশ্রিত। অতীত হাতড়েই মানুষ এগোয় ভবিষ্যৎ পানে। ইতিহাস আমাদের আধেয়। জীবনের পথপরিক্রমার অর্জন-বিসর্জন, জয়-পরাজয়, আবিষ্কার-উদ্ভাবন, রাজনীতি-অর্থনীতি-সমাজনীতি একসময় রূপ নেয় ইতিহাসে। সেই ইতিহাসের উল্লেখযোগ্য ঘটনা স্মরণ করাতেই জাগো নিউজের বিশেষ আয়োজন আজকের এই দিনে।

১ অক্টোবর ২০২২, শনিবার। ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঘটনা
১৮৫৪- ভারতবর্ষে সরকারিভাবে ডাকটিকিট ব্যবস্থা চালু হয়।
১৮৬৪- পোস্ট অফিসের মাধ্যমে মানিঅর্ডার পদ্ধতি প্রবর্তন করা হয়।
১৯০৯- ভাগলপুরে বেগম রোকেয়া কর্তৃক ভাগলপুর সাখাওয়াৎ মেমোরিয়াল স্কুল প্রতিষ্ঠা করা হয়।
১৯৯৪- জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সহায়তায় পালাউ স্বাধীনতা লাভ করে।
২০০১- কাশ্মীরের রাজ্যসভায় জঙ্গি হামলায় ৪০ জনকে হত্যা করা হয়।
২০০১- বাংলাদেশে অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।
২০০৫- বোমা হামলায় ইন্দোনেশিয়ার বালিতে ২৩ জনের প্রাণহানি ঘটে।

জন্ম
১৯০৬- ভারতীয় বাঙালি সংগীত পরিচালক, সুরকার, লোকজ সংগীত শিল্পী শচীন দেব বর্মন। জন্ম ব্রিটিশ ভারতের কুমিল্লায়। তবে আদিবাস বর্তমান ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে। বিংশ শতাব্দীতে ভারতীয় বাংলা ও হিন্দি গানের কিংবদন্তিতুল্য ও জনপ্রিয় সংগীত পরিচালক, সুরকার, গায়ক ও লোকসংগীত শিল্পী। তাকে এস ডি বর্মন হিসেবেই উল্লেখ করা হয়। কিছুটা অনুনাসিক কণ্ঠস্বরের জন্য তিনি তার শ্রোতাদের কাছে বিশেষভাবে পরিচিত। প্রায় একশ বছর পার করেও বাংলা গানের শ্রোতাদের কাছে তার কালোত্তীর্ণ গানের আবেদন কিছু কমেনি। তার লেখা গানের মধ্যে আছে- শোন গো দখিন হাওয়া, বিরহ বড় ভাল লাগে, সুবল রে বল বল, বর্ণে গন্ধে ছন্দে গীতিতে, কে যাস রে ভাটি গাঙ বাইয়া, তাকদুম তাকদুম বাজাই বাংলাদেশের ঢোল। বিএফজেএ অ্যাওয়ার্ড, ফিল্মফেয়ার পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মাননা পেয়েছেন।
১৯২০- বাংলাদেশি ছড়াকার ও শিশুসাহিত্যিক আবুল হোসেন মিয়া।
১৯২১- বাংলাদেশের প্রথম মরণোত্তর চক্ষুদানকারী এআরএম ইনামুল হক।
১৯৪০- কবি ও প্রাবন্ধিক মনজুরে মাওলা।
১৯৪৩- ছড়াকার সিরাজুল ফরিদ।
১৯৯০- বাংলাদেশি প্রমীলা ক্রিকেটার সালমা খাতুন। খুলনা জেলায় জন্ম। ২০১১ সালের সাভারে অনুষ্ঠিত খেলায় আয়ারল্যান্ড মহিলা ক্রিকেট দলের বিপক্ষে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ও ২০১২ সালে ডাবলিনে আয়ারল্যান্ড দলের বিপক্ষে টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে অভিষেক ঘটে। নারীদের ক্রিকেটে তিনি ডানহাতে ব্যাটিং করে থাকেন। পাশাপাশি ডানহাতে অফ ব্রেক বোলিংও করে থাকেন। বাংলাদেশ দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন কয়েকবার। বৈশ্বিক ক্রিকেটাঙ্গনে তাকে অন্যতম সেরা নারী ক্রিকেটার হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

মৃত্যু
১৯৪২- ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের শহীদ বিপ্লবী ব্রজমোহন জানা।
১৯৫১- মার্কিন সাংবাদিক ও লেখিকা পলিন ফাইফার।
১৯৭১- বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের মুক্তিযোদ্ধা, বীর উত্তম খেতাবপ্রাপ্ত সাফিল মিয়া।
২০০০- চিত্রশিল্পী কালাম মাহমুদ।
২০১৩- মার্কিন ইতিহাসবিদ ও লেখক টম ক্ল্যানসি।

দিবস
আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস
বিশ্ব নিরামিষ দিবস

  • সর্বশেষ - ফিচার