, ২১ মাঘ ১৪২৯ অনলাইন সংস্করণ

জুনের প্রথম সপ্তাহের মধ্যেই বিআরটি প্রকল্পের উদ্বোধন: কাদের

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

জুনের প্রথম সপ্তাহের মধ্যেই বিআরটি প্রকল্পের উদ্বোধন: কাদের

বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) প্রকল্পের নির্মাণকাজের সার্বিক অগ্রগতি প্রায় ৮০ শতাংশ বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, ‘আগামী বছরের মে মাস থেকে জুনের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে বিআরটি প্রকল্পের শুভ উদ্বোধন করা হবে।’

রোববার (৬ নভেম্বর) বিআরটি প্রকল্পের অধীনে ঢাকামুখী সড়ক ও ফ্লাইওভার উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আগামী ২৬ নভেম্বর কর্ণফুলী নদীর তলদেশ দিয়ে নির্মিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেলের দক্ষিণ পাশের টিউবের পূর্তকাজের সমাপনী উদযাপন করা হবে। এতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভার্চুয়ালি যুক্ত হবেন।’

মন্ত্রী বলেন, ‘২ দশমিক ৩ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের ১০ লেনের ফ্লাইওভার ও ঢাকামুখী দুটি লেন যানচলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হলো। আশা করি, এটি কিছুটা হলেও মানুষের কষ্ট লাঘব করবে।’

২০ দশমিক ৫ কিলোমিটার দীর্ঘ বিআরটি প্রকল্পের সড়কের সাড়ে চার কিলোমিটার থাকবে উড়াল সড়ক। বাকি ১৬ কিলোমিটার বিআরটি সড়ক মাটির সমতলে নির্মিত হচ্ছে। মাঝে ১৭৫ মিটার দীর্ঘ ১০ লেনের টঙ্গী সেতু রয়েছে।

সেতু ও ফ্লাইওভার নির্মাণ করছে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ। উত্তরা থেকে টঙ্গী রেলগেট পর্যন্ত উড়াল সড়কের দৈর্ঘ্য দুই দশমিক দুই কিলোমিটার।

ফ্লাইওভার ও সেতুর দুই লেন যান চলাচলের জন্য খুলে দিতে ঢাকা মহানগর পুলিশ ও গাজীপুর মহানগর পুলিশের মতামত নেওয়া হয়। দুই মহানগরের পুলিশ ট্রাফিক ব্যবস্থা নিয়ন্ত্রণ করবে।

টঙ্গী সেতুর ঢাকামুখী পুরোনো সেতু অপসারণ এবং সেখানে নতুন সেতু নির্মাণের কাজ শুরু হবে। ঢাকা থেকে টঙ্গীমুখী যানবাহনকে পুরোনো সেতু ব্যবহার করতে হবে।

বিআরটি প্রকল্পটি ২০১২ সালে সরকারের অনুমোদন পায়। এ পদ্ধতিতে সড়কের মাঝে দুই লেনে চলবে শুধু বিশেষায়িত বাস।

  • সর্বশেষ - জাতীয়