, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ অনলাইন সংস্করণ

এভিয়েশন খাতের কর্মীদের প্রশিক্ষণ দিতে ভারতের আগ্রহ

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

এভিয়েশন খাতের কর্মীদের প্রশিক্ষণ দিতে ভারতের আগ্রহ

বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত প্রণয় ভার্মার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান।

মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) সাক্ষাতকালে দু’দেশের এভিয়েশন খাতের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধি ও বাংলাদেশের এভিয়েশন খাতে দক্ষ জনবল গড়ে তোলার ক্ষেত্রে সহযোগিতার বিষয়ে আলোচনা করা হয়।

এক বিজ্ঞপ্তিতে বেবিচক জানায়, বর্তমানে বেবিচকের ১২ জন কর্মকর্তা ভারতের এলাহবাদে বেসিক এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলারস প্রশিক্ষণ করছে। সেই প্রশিক্ষণের যাবতীয় ব্যয়ভার ভারত সরকার বহন করছে। এ সহযোগিতার জন্য বেবিচক চেয়ারম্যান ভারতের  রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে ভারত সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

বেবিচক জানায়, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বিমান চলাচল চুক্তি ১৯৭৮ সালে সম্পাদিত হয়। আলোচনার সময় দু’দেশের বিদ্যমান বিমান চলাচল চুক্তি আধুনিকায়ন করার ওপর জোর দেওয়া হয়। দুই দেশের মধ্যে যোগাযোগ তড়ান্বিত করার লক্ষ্যে আরো বেশি সংখ্যক নতুন গন্তব্যে ফ্লাইট চালুর জন্য দুই দেশের বিমান সংস্থাগুলোকে উৎসাহিত করতে বিশেষ করে ভারতের পূর্বাঞ্চলের প্রধান প্রধান শহরগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের যোগাযোগ বৃদ্ধির বিষয়ে আলোচনা করা হয়। দু’দেশের সিভিল এভিয়েশন ট্রেনিং একাডেমির মধ্যে সহযোগিতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে একটি সমঝোতা স্বাক্ষরের প্রস্তাব করা হয়। এছাড়া বাংলাদেশের আকাশসীমায় এয়ার ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ সংক্রান্ত অনিষ্পন্ন বিষয়গুলো সমাধানের বিষয়ে ফলপ্রসূ আলোচনা করা হয়।

বাংলাদেশের এভিয়েশন খাতে নিয়োজিত কর্মীদের প্রশিক্ষণ দেওয়া, বিদ্যমান বিমান বন্দরগুলোর সক্ষমতা বৃদ্ধি, ভারতীয় অর্থায়নে লাইন অব ক্রেডিটের মাধ্যমে নতুন বিমান বন্দর তৈরি ও পরিচালন ক্ষেত্রে সহযোগিতার বিষয়ে ভারতের রাষ্ট্রদূত আগ্রহ প্রকাশ করেন।

কোভিড-১৯ পরবর্তী সময়ে ভারতে চিকিৎসা নেওয়াসহ অন্যান্য প্রয়োজনে বাংলাদেশি পর্যটক বৃদ্ধি পাচ্ছে। আলোচনা শেষে বন্ধুপ্রতীম দুই দেশের মধ্যে বিমান চলাচল ক্ষেত্রে যোগাযোগ আরও বৃদ্ধি পাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়।

  • সর্বশেষ - আলোচিত খবর