ময়মনসিংহ, , ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬ অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ভেবে আত্মহত্যা

  অনলাইন ডেস্ক

  প্রকাশ : 

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ভেবে আত্মহত্যা

করোনাভাইরাস আতঙ্কে কাঁপছে চীনসহ প্রায় গোটা বিশ্ব। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ভারতের বেশ কিছু শহরের হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন রোগীরা। আতঙ্ক গ্রাস করছে সাধারণ মানুষকে। আর সেই আতঙ্কই প্রাণ নিল এক ব্যক্তির। 

অন্ধ্রপ্রদেশের চিত্তোর জেলার এক গ্রামের বাসিন্দা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ভেবে আত্মহত্যা করেছেন। খবর এই সময়ের

কিছুদিন আগে এয়ার ইন্ডিয়ার বিমান চীন থেকে ৩২৪ জন ভারতীয়কে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। যাদের মধ্যে ৫৬ জনই অন্ধ্রপ্রদেশের বাসিন্দা, ৫৩ জন তামিলনাড়ু এবং ৪২ জন কেরালার। 

শেষামনাইডু কান্দ্রিগা গ্রামের বাসিন্দা কে বালকৃষ্ণ করোনাভাইরাস সংক্রান্ত খবর দেখে বিশ্বাস করতে শুরু করেন, তিনিও এই রোগে আক্রান্ত। সর্দি-কাশি ও জ্বরের জন্য তার চিকিত্‍‌সাও চলছিল। ডাক্তাররা জানান, ভাইরাল জ্বরে আক্রান্ত ছিলেন তিনি। তবে তার শরীরে করোনাভাইরাসের কোনো লক্ষণ ধরা পড়েনি। 

তবে ডাক্তারের কথায় আমল দেননি বালকৃষ্ণ। নিজেকে করোনায় আক্রান্ত ভেবে তিনি পরিবারকে বাঁচানোর জন্য কঠিন পদক্ষেপ নেন। মঙ্গলবার স্ত্রী-সন্তানকে ঘরে তালাবন্দি করে রেখে মায়ের কবরস্থানে চলে যান তিনি। তার স্ত্রীর ডাকাডাকিতে প্রতিবেশীরা দরজা খুলে দেওয়ার পর সবাই ছুটে যান কবরস্থানে। তারা গিয়ে দেখেন, মায়ের কবরস্থানের পাশে একটি গাছের ডালে ঝুলছেন বালকৃষ্ণ।

তার ছেলে জানান, চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলার পর থেকেই বাবার মনে হয়েছিল, তিনি করোনায় আক্রান্ত। তারপর থেকেই বারবার তিনি বলতে থাকেন, পরিবারকে রক্ষা করতে তাকে আত্মহত্যাই করতে হবে। হাজার বোঝানো সত্ত্বেও পরিবারের কথা শোনেননি তিনি।

  • সর্বশেষ - আলোচিত খবর