ময়মনসিংহ, , ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

সাকিবের চোখে সবচেয়ে কঠিন বোলার কে?

  স্পোর্টস ডেস্ক

  প্রকাশ : 

সাকিবের চোখে সবচেয়ে কঠিন বোলার কে?

প্রায় ১৪ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে এখনও পর্যন্ত ৩৩৮টি ম্যাচ খেলেছেন সাকিব আল হাসান। ২০টি ভিন্ন প্রতিপক্ষ ও ১৬টি ভিন্ন দেশে এই ম্যাচগুলো খেলেছেন তিনি। বাংলাদেশ তো বটেই আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপটেও সাকিবের ক্যারিয়ার সাফল্যমণ্ডিত।

দীর্ঘদিনের এই ক্রিকেট ক্যারিয়ারে অসংখ্য বোলারের মুখোমুখি হয়েছেন সাকিব। খুব বেশি বোলার সাকিবকে সমস্যা ফেলতে পারেননি। তবে দীর্ঘদেহী গড়নের সঙ্গে গতির ঝড়- এ কারণে দক্ষিণ আফ্রিকান পেসার মরনে মরকেল ও ইংল্যান্ডের পেসার জোফরা আর্চারের বিপক্ষে ভুগতে হয়েছে তাকে।

এছাড়া স্পিনারদের মধ্যে একবাক্যে শ্রীলঙ্কান কিংবদন্তি মুত্তিয়া মুরালিধরনের কথাই বলেছেন সাকিব। শুক্রবার ফেসবুক লাইভে ভক্তদের প্রশ্নের জবাবে সাকিব জানিয়েছেন তার খেলা সবচেয়ে কঠিন বোলারের নাম। যেখানে তিনি বলেছেন তিনজন বোলারের নাম।

ক্যারিয়ারের শুরু দিকেই অর্থাৎ ২০০৮ সালে দলের সঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়েছিলেন সাকিব। টেস্ট সিরিজের দুই ম্যাচে ফাইফার নিয়েছিলেন তিনি। তবে ব্যাট হাতে সেবার তেমন কিছু করতে পারেননি সাকিব। এর বড় কারণ ছিলেন মরকেল।

নিজের মোকাবিলা করা সবচেয়ে কঠিন বোলার কে?- এমন প্রশেন্র জবাবে ফেসবুক লাইভে সাকিব বলেন, ‘এটা আসলে পরিস্থিতির কারণে আলাদা হয়। মানে স্পিনিং উইকেট হলে স্বাভাবিকভাবে একজন স্পিনার খুব বিপদজনক হবে ফাস্ট বোলারের থেকে। আবার সিমিং উইকেট হলে তখন ফাস্ট বোলারকে অনেক বিপদজনক মনে হয় স্পিনারের থেকে।’

‘সেদিক থেকে পেসারদের মধ্যে মরনে মরকেল সবার ওপরে। যখন আমি একটা বাচ্চা ছিলাম, ১৭-২০ বছর বয়সে জাতীয় দলকে প্রতিনিধিত্ব করছি, তখন দক্ষিণ আফ্রিকায় খেলতে গিয়েছিলাম, সে সময় মরনে মরকেল তার সেরা সময়টাতে ছিলেন। ওকে আমার খুব বিপজ্জনক মনে হতো ওই সময়।’

এছাড়া বর্তমান সময়ের পেসারদের মধ্যে সবশেষ বিশ্বকাপে জোফরা আর্চারের বিপক্ষে খানিক অসুবিধা হয়েছে সাকিবের। তিনি বলেন, ‘সম্প্রতি যদি কাউকে বলতে হয় তবে বলবো জফরা আর্চার, বিশ্বকাপের সময়। এই দুইজন (মরকেল ও আর্চার) পেস বোলার। এর বাইরে স্পিনার বললে অবশ্যই মুরলিধরন। নিঃসন্দেহে তিনি ছিলেন সবচেয়ে কঠিন বোলার যাঁকে আমি সামলেছি।’

  • সর্বশেষ - খেলাধুলা