ময়মনসিংহ, , ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ভ্রমণের পার্ক

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ভ্রমণের পার্ক

অস্টিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় বিশেষ ডিজাইনে তৈরি পার্ক। ছবি : লোনলি প্ল্যানেট ডট কম

করোনা ভাইরাস মহামারিতে বদলে গেছে পৃথিবীর চিত্র; সেই সঙ্গে মানুষের জীবনযাপনও। এখন আর দলবেধে মানুষ কোথাও ঘুরতে বের হয় না। বরং পরস্পর থেকে মানুষ কীভাবে দূরে থাকতে পারে সেই চেষ্টাই নিরন্তর।


করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার পাশাপাশি কমপক্ষে তিন ফুট দূরত্ব মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। এ কারণে যতো কম বাইরে ঘোরাঘুরি করে পারা যায় সেটাই ভালো। কিন্তু এবার অস্টিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় এমন একটি পার্ক তৈরি করা হয়েছে যেখানে একই সঙ্গে মানুষের ভ্রমণ এবং সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার বিধি দুটোই সম্ভব হচ্ছে। বিশেষ ডিজাইনে তৈরি পার্কটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘পার্ক ডি লা ডিস্ট্যান্স’।


পার্কটি দেখতে অনেকটাই গোলকধাঁধার মতো। কিন্তু এটি এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যেন মানুষ একে অপরের কাছ থেকে নিরাপদ দূরত্বে থাকতে পারে। এ ধরনের পার্ক বিশ্বে এটিই প্রথম। অসাধারণ নতুন এই সংযোজন ভ্রমণপ্রেমীদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার ক্ষেত্রে সহায়ক হবে। মূলত সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার অসুবিধার কারণে এখন অনেকেই পার্কে কিংবা বাইরে হাঁটতে বের হচ্ছেন না। কিন্তু ডায়াবেটিস সহ নানাবিধ রোগে আক্রান্তদের জন্য নিয়মিত হাঁটা এবং বাইরে ঘোরা খুবই জরুরি। কিন্তু লকডাউনের কারণে অনেকেই সেটি করতে পারছেন না। কিন্তু নতুন ডিজাইনের এই সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার পার্কটি সেই সমস্যা থেকে পরিত্রাণের একটি উত্তম উপায় হতে পারে।


পার্কটির নকশা করেছে অস্ট্রিয়ান প্রতিষ্ঠান স্টুডিও প্রেস্ট। ভিয়েনার একটি খোলা জায়গায় এটি সাজানো হয়েছে। শহরটির বাসিন্দারা কেবল এই একটি জায়গায় এখন বেড়াতে পারছেন। কারণ লকডাউনে অন্য সব পার্ক অস্থায়ীভাবে বন্ধ রয়েছে।পার্কটির একটি লেন থেকে অন্যটির দূরত্ব ২৪০ সেন্টিমিটার। আর ৯০ সেন্টিমিটারের প্রস্থ একটি থেকে অন্যটিকে পৃথক করেছে। প্রতিটি লেনে প্রবেশ ও বের হওয়ার একটি করে ফটক আছে। এতে বিনামূল্যে হাঁটাহাঁটি করা যাবে। পার্ক ডি লা ডিস্ট্যান্স বা সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার এই পার্কটির হ^াটার পথ গ্রানাইটের কঙ্কর দিয়ে বানানো। কেবল পাশের গলিতে অন্য কারো পায়ের আওয়াজ শোনা যাবে কিন্তু দেখা যাবে না। পার্কটি একবার ঘুরতে ২০ মিনিট সময় লাগে।-লোনলি প্ল্যানেট ডট কম

  • সর্বশেষ - আন্তর্জাতিক