ময়মনসিংহ, , ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

কম খরচে প্রচুর পুষ্টি

  স্বাস্থ্য কথা

  প্রকাশ : 

কম খরচে প্রচুর পুষ্টি

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মোকাবিলায় স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্বের নিয়মকানুন মেনে চলার পাশাপাশি সুষম খাবার খাওয়াও গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু অনেকেই মনে করেন, সুষম খাবার মানেই দামি খাবার। বিষয়টি মোটেই তা নয়। অল্প খরচেও আমরা খাবারে পরিমিত শর্করা, প্রোটিন, চর্বি ও তেল, ভিটামিন, খনিজ লবণ যোগ করতে পারি। মনে রাখতে হবে, প্রতিটি খাদ্য উপাদানের নিয়মিত ও পরিমিত উপস্থিতিই খাবারকে সুষম করে তোলার প্রধান শর্ত।


আমাদের দেশে বেশির ভাগ মানুষের শর্করার প্রধান উৎস ভাত। প্রোটিন হিসেবে মাছ-মাংস প্রতিদিনের পাতে না উঠলেও সমস্যা নেই। ডাল, ছোলা, বাদাম, শিমের বিচি, সয়াবিন ইত্যাদি উদ্ভিজ্জ উৎসও দিতে পারে প্রয়োজনীয় প্রোটিনের জোগান। শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় সব কয়টি অত্যাবশ্যকীয় অ্যামাইনো অ্যাসিড ডিম ছাড়া অন্য কোনো খাদ্যে এককভাবে পাওয়া যায় না। তাই প্রতিদিন একটা ডিম খাদ্য তালিকায় রাখা উচিত। সেটাও দুষ্প্রাপ্য হলে ভাতের সঙ্গে ডাল মিশিয়ে অ্যামাইনো অ্যাসিডের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব। চাল, রুটি, যব ইত্যাদি শস্যদানাতেও প্রোটিন রয়েছে। চালে যে অ্যামাইনো অ্যাসিড সীমিত পরিমাণে থাকে, ডালে তা পাওয়া যায় পর্যাপ্ত পরিমাণে। আবার ডালে যে অ্যামাইনো অ্যাসিডের পরিমাণ সীমিত, চালে তা যথেষ্ট। সুতরাং শস্যদানার সঙ্গে যদি ডাল বা ডালজাতীয় খাদ্য মিশিয়ে খাওয়া যায়, তবে প্রোটিনের চাহিদা অতিরিক্ত মাছ-মাংস ছাড়াও পূরণ করা সম্ভব।


রোগ প্রতিরোধের জন্য প্রোটিন ছাড়াও আমাদের ভিটামিন ডি, অ্যান্টি–অক্সিডেন্ট যেমন ভিটামিন সি, ভিটামিন ই, বিটা ক্যারোটিন, সেলেনিয়াম, জিংক ও ম্যাগনেসিয়াম খাওয়া উচিত। ডিমের কুসুম, মাশরুম ইত্যাদি থেকে ভিটামিন ডি পাওয়া যায়। তবে নিয়ম করে শরীরে সূর্যের আলো লাগানোই হতে পারে ভিটামিন ডি-এর সেরা উৎস।


সবুজ ও রঙিন শাকসবজিতে (সজিনা, মুলা, ধনেপাতা, পালংশাক, লাউশাক, ডাঁটাশাক, পুঁইশাক, মিষ্টিকুমড়া, কলমিশাক, লালশাক) রয়েছে প্রচুর ভিটামিন সি, বিটা ক্যারোটিন, ক্যালসিয়াম, আঁশ ইত্যাদি। নানা মৌসুমি ফল (আমলকী, পেয়ারা, লেবু, জাম্বুরা, আমড়া, জাম, কামরাঙা, আনারস, লিচু, তরমুজ, পাকা কলা, কাঁঠাল, আম ইত্যাদি) ও সবজি (কাঁচা মরিচ, উচ্ছে, করলা, ফুলকপি, ওলকপি, সজিনা, টমেটো, ক্যাপসিকাম, মিষ্টিকুমড়া, পেঁয়াজকলি, কলার মোচা, শালগম, বীট, কাঁচা কাঁঠাল, ঢ্যাঁড়স, পটোল, আলু ইত্যাদি) ভিটামিন সি-এর চমৎকার উৎস। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনার এই সময়ে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে দৈনিক অন্তত দুই কাপ ফল এবং আড়াই কাপ সবজি খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছে। তবে শাকসবজি ভালো করে সিদ্ধ করে রান্না করতে হবে। আর কাঁচা খেতে চাইলে তা খুব ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে।


নুরুন নাহার দিলরুবা, পুষ্টিবিদ ও শিক্ষক, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, গাজীপুর

  • সর্বশেষ - হেলথ টিপস