ময়মনসিংহ, , ২১ ফাল্গুন ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

গার্মেন্টসে যেতে রাজি না হওয়ায় লাশ হলেন খুকু মণি

গার্মেন্টসে যেতে রাজি না হওয়ায় লাশ হলেন খুকু মণি

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ উপজেলায় খুকু মণি (২০) নামে এক গৃহবধূকে গলা টিপে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে মোহনগঞ্জ উপজেলার তেথুলিয়া ইউনিয়নের তেথুলিয়া গ্রামে। বুধবার মধ্যরাতে তাকে স্বামীর ঘরের ভেতর গলা টিপে হত্যা করা হয়।


নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, তিন বছর আগে তেথুলিয়া গ্রামের মো. রব্বানীর ছেলে মোতাকাব্বীরের সঙ্গে বিয়ে হয় একই গ্রামের তরিকুল ইসলামের মেয়ে খুকু মণির। বিয়ের পর থেকে স্বামী-স্ত্রী ঢাকায় পোশাক কারখানায় চাকরি করে বাড়িতে টাকা পাঠাতেন। করোনার কারণে দুই মাস আগে চাকরি থেকে বাড়িতে চলে আসেন তারা। খুকু মণি করোনার ভয়ে আবার চাকরিতে যেতে আপত্তি করলে এ নিয়ে তাদের দাম্পত্য কলহ শুরু হয়।


এ নিয়ে বুধবার রাতে খুকু মণির ভাই এরশাদ ও ভাবি শাহানার কাছে অভিযোগ করেন মোতাকাব্বীর। পরে রাত ১০টায় সেখান থেকে রাতের খাবার খেয়ে একই গ্রামে নিজের বাড়ি ফিরে যান মোতাকাব্বীর। বাড়ি আসার কিছু সময় পর তাদের ঘরে চিৎকারের শব্দ পেয়ে প্রতিবেশীরা ঘরে গিয়ে খুকু মণিকে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন।


খবর পেয়ে খুকু মণির বাড়ির লোকজন পুলিশে খবর দিলে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নেয়া হয়। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে নিহতের স্বামী মোতাকাব্বীর, শ্বশুর রব্বানী মিয়া শাশুড়ি ফজিলত খাতুন ও দেবর মোতাচ্ছিরকে গ্রেফতার করে পুলিশ।


ঘটনার পর নিহতের বাবা তরিকুল ইসলাম বাদী হয়ে জামাই মোতাকাব্বীরসহ চারজনকে আসামি করে মোহনগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা করেন।


মোহনগঞ্জ থানা পুলিশের ওসি মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ খান বলেন, খবর পেয়ে মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে নিহত গৃহবধূর বাবা বাদী হয়ে চারজনকে আসামি করে মামলা করেছেন। চার আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।


  • সর্বশেষ - মহানগর