ময়মনসিংহ, , ২১ শ্রাবণ ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

জমি বিক্রির টাকা লুট করতে খুন করা হয় সুন্দরিকে

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

জমি বিক্রির টাকা লুট করতে খুন করা হয় সুন্দরিকে

গৃহবধূ সুন্দরি বেগম হত্যায় গ্রেফতার জামিরুল ইসলাম। ছবি: 

জমি বিক্রির টাকা লুট করতে খুন করা হয় মেহেরপুর জেলার গাংনী উপজেলার বামুন্দী এলাকার সুন্দরি বেগমকে। সুন্দরি বেগম একটি জমি বিক্রি করতে ক্রেতার কাছ থেকে ৫০ টাকা বায়না নিয়েছিলেন। সেই টাকা ছিনতাই করতে একজন সহযোগীকে নিয়ে সুন্দরিকে হত্যা করেন ভাসুরের ছেলে জামিরুল ইসলাম।শুক্রবার সকালে মেহেরপুর পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য তুলে ধরেন পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী।


পুলিশ সুপার বলেন, মামলাটি অতি গুরুত্বপূর্ণ ও চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলা হিসেবে আমলে নিয়ে রহস্য উদঘাটন করার জন্য জেলা গোয়েন্দা শাখাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। জেলা গোয়েন্দা শাখার ভারপ্রাপ্ত ওসি জুলফিকার আলীর তদন্তে জামিরুল ইসলামকে (৩৩) আটক করা হয়। জামিরুল ইসলাম কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর থানার শিতলাইপাড়ার আবু আফফানের ছেলে। তবে তার সহযোগী পলাতক রয়েছেন।


তিনি আরও জানান, আসামি আটকের পর ফৌজদারী কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় হত্যা ও জমি বিক্রির টাকা হাতিয়ে নেওয়ার কথা স্বীকার করেন। সুন্দরী বেগমকে গলায় শাড়ি জড়িয়ে হত্যা করা হয়। এসময় স্বামী রুস্তুম আলী বাঁধা দিলে কুড়াল দিয়ে তার ওপরও হামলা চালায় আসামিরা। দুজনই মারা গেছে ভেবে আসামিরা সেখান থেকে পালিয়ে যায়। তবে এ হত্যাকান্ডের সাথে আরো কেউ জড়িত আছে কিনা সে বিষয়ে তদন্ত অব্যাহত রয়েছে।


প্রেস ব্রিফিংয়ে আরও উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পুলিশ সুপার পদ মর্যাদা) শেখ জাহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল) মোস্তাফিজুর রহমান, সহকারী পুলিশ সুপার হাসিবুল আলম, ওসি ডিবি জুলফিকার আলীসহ স্থানীয় সাংবাদিকরা।


উল্লেখ্য, গত ২৮ মে গাংনীর বামুন্দীতে একটি পরিত্যক্ত বাড়ি থেকে সুন্দরি বেগম নামের এক নারীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। একই ঘরের চৌকির ওপর থেকে সুন্দরির স্বামী রুস্তম আলীকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

 

  • সর্বশেষ - সারাদেশ