ঢাকা, , ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে

সুদের হার এক অঙ্কে নামিয়ে আনতে কমিটি

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

সুদের হার এক অঙ্কে নামিয়ে আনতে কমিটি

 

ব্যাংক খাতে সুদের হার এক অঙ্কে নামিয়ে আনতে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস এম মনিরুজ্জামানকে প্রধান করে সাত সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন অগ্রণী ব্যাংকের চেয়ারম্যান জায়েদ বখত, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের চেয়ারম্যান কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদ, অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের (এবিবি) সভাপতি সৈয়দ মাহবুবুর রহমান, রূপালী ব্যাংকের এমডি ওবায়েদ উল্লাহ আল মাসুদ, আইএফআইসি ব্যাংকের এমডি শাহ এ সারওয়ার ও এনআরবি ব্যাংকের এমডি মেহমুদ হোসেন।

জানা গেছে, কমিটি একটি সুপারিশমূলক প্রতিবেদন তৈরি করবে। সেই প্রতিবেদনেই ওঠে আসবে ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে এক অঙ্কের সুদের হার কীভাবে কার্যকর করা যায়।

শেরে বাংলা নগরের এনইসি সম্মেলনকক্ষে আজ রোববার সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের (এমডি) সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের কাছে এই কমিটি গঠনের কথা বলেন। বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘অর্থনীতির অন্য জায়গায় ভালো করলেও একটিতে আমরা ভালো করতে পারিনি। সেটা হচ্ছে খেলাপি ঋণ। খেলাপি ঋণ বেড়েছে, এটা সত্য। কিন্তু কেন বাড়ল তাও খতিয়ে দেখতে হবে। এটা বেড়েছে ব্যাংক খাতে উচ্চ সুদের হারের কারণে। সুদের হার কমলে খেলাপি ঋণও কমবে।’

আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, উৎপাদনশীল খাতকে বাঁচাতে ব্যাংক ঋণের সুদ হার এক অঙ্কে নামিয়ে আনতে হবে। দুই শতাংশ এককালীন জমা দিয়ে (ডাউন পেমেন্ট) ৯ শতাংশ সুদে ঋণ পুনঃতফসিলের যে সুবিধা দেওয়া হয়েছিল, আদালতের স্থগিতাদেশের কারণে ব্যবসায়ীরা সুবিধাটি নিতে পারেনি। ফলে এ প্রান্তিকে খেলাপি ঋণ বেড়েছে। স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার হয়ে যাওয়ায় ডিসেম্বর শেষে খেলাপি ঋণও কমে আসবে।

ব্যাংক খাতের নিয়ন্ত্রক হিসেবে খেলাপি ঋণ কমাতে বাংলাদেশ ব্যাংকের ভূমিকা নিয়ে গভর্নর ফজলে কবিরকে কয়েকটি প্রশ্ন করা হলেও অর্থমন্ত্রী তাঁকে কথা বলার সুযোগ দেননি।