ময়মনসিংহ, , ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

এক যুগেও নির্মাণ হয়নি ভেঙে যাওয়া ব্রিজ

এক যুগেও নির্মাণ হয়নি ভেঙে যাওয়া ব্রিজ

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার সুরিহাড়া, বালিয়াচণ্ডী রাস্তার কোনাগাঁও কাটাখালী নদীর ওপর এক যুগেও নির্মিত হয়নি ভেঙে যাওয়া ব্রিজ।ফলে এ পথে যাতায়াতকারী মানুষের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্রিজটি নির্মাণের ব্যাপারে আজও কোনো পদক্ষেপ নেয়া হয়নি।


জানা গেছে, স্বাধীনতার পর এলজিইডি এ নদীর ওপর একটি ব্রিজ নির্মাণ করে। ২০০৮ সালে পাহাড়ি ঢলের পানির তোড়ে ব্রিজটি ভেঙে যায়। এতে প্রায় ১০টি গ্রামের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে যোগাযোগ ব্যবস্থা চালুর ব্যাপারে আর কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি। স্থানীয় বাসিন্দাদের পক্ষ থেকে ভেঙে যাওয়া ব্রিজের পাশ দিয়ে একটি বাঁশের সাঁকো তৈরি করে শিক্ষার্থীদের পারাপারের ব্যবস্থা করা হলেও প্রশাসনিকভাবে নেয়া হয়নি কোনো ব্যবস্থা। এ সাঁকোতে পারাপার করতে গিয়ে মাঝে মধ্যেই ঘটছে দুর্ঘটনা।


দরিকালিনগর গ্রামের সুরুজ আলী, কাটাখালী গ্রামের আব্দুল আজিজ, মকছেদ আলী, মজিবর রহমান, বিল্লাল হোসেন, সাদা মিয়া, কোনাগাঁও গ্রামের আবুল কালামসহ গ্রামবাসী জানান, ব্রিজটি নির্মাণের অভাবে স্কুল, মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের পারাপারে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।তারা জানান, এ পথে কান্দুলী, বালিয়াচণ্ডী, কোচনীপাড়া, জগৎপুর, মালিঝিকান্দা, জড়াকুড়া, পাইকুড়া, দড়িকালীনগর, সারিকালিনগর, সুড়িহাড়া, পাগলারমুখ, সালধা, বেলতৈলসহ প্রায় ১৫টি গ্রামের লোকজন যাতায়াত করে থাকেন। কিন্তু ব্রিজটি নির্মাণের অভাবে এ সব গ্রামবাসীর চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।


এলাকায় উৎপাদিত কৃষিপণ্য ও গবাদিপশু পারাপারে চরম বিড়ম্বনার শিকার হতে হচ্ছে কৃষকদের। সরেজমিন অনুসন্ধানে গিয়ে ভুক্তভোগী গ্রামবাসীর সঙ্গে কথা বলে এ সব দুর্ভোগের কথা জানা গেছে। ঝিনাইগাতী সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন চাঁন বলেন, এখানে একটি ব্রিজ নির্মাণের বিষয়ে উপজেলা উন্নয়ন ও সমন্বয় কমিটির সভায় বিভিন্ন সময় আলোচনা হয়েছে। আশ্বাসও পাওয়া গেছে। কিন্তু আজও তা বাস্তবায়িত হয়নি। ঝিনাইগাতী উপজেলা প্রকৌশলী মো. মোজাম্মেল হক বলেন, ওই ব্রিজ নির্মাণের বিষয়ে ডিজাইনের কাজ চলছে। তা সম্পন্ন হলেই ব্রিজ নির্মাণ কাজ করা হবে।


  • সর্বশেষ - মহানগর