ময়মনসিংহ, , ২৪ আষাঢ় ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

জনপ্রতিনিধি-পিআইও বিক্রি করে দিলেন ১২ লাখ টাকার সরকারি গম

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

জনপ্রতিনিধি-পিআইও বিক্রি করে দিলেন ১২ লাখ টাকার সরকারি গম

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) ও ব্যবসায়ীরা মিলে পাচারকালে ৪০ টন সরকারি গম উদ্ধার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

এ ঘটনায় চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে সদরের আলীপুর চেকপোস্ট এলাকা ও শুক্রবার বিকেলে পাটকেলঘাটা থানা সদর থেকে সরকারি গমগুলো উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতাররা হলেন- কালিগঞ্জ উপজেলার নলতা গ্রামের ব্যবসায়ী মৃত কামরুল হুদার ছেলে আব্দুল খালেক (৫০), নবীনগর গ্রামের মৃত জাবের আলীর ছেলে আব্দুল গণি (৬০), তেঁতুলিয়া গ্রামের মৃত ছুরমান আলী গাজীর ছেলে শহিদুল ইসলাম (৫০) ও সাতক্ষীরা সদরের ইটাগাছা এলাকার মৃত উহের সরদারের ছেলে লিয়াকত আলী (৪০)।

শুক্রবার রাত ৯টার দিকে সাতক্ষীরা জেলা পুলিশের বিশেষ শাখা থেকে প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানানো হয়, কালিগঞ্জ উপজেলার গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার (কাবিখা) দ্বিতীয় পর্যায়ে নয় প্রকল্পের গম প্রকল্প স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিরাজ হোসেন খান ও গম ক্রেতারা পরস্পর যোগসাজশে অবৈধভাবে আত্মসাতের জন্য পাচার করেছেন।

পাচারকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুর ও শুক্রবার বিকেলে প্রকল্পের পাচারকৃত গমগুলো উদ্ধার করা হয়। সাতক্ষীরা সদরের আলীপুর চেকপোস্ট এলাকা থেকে ৩২৬ বস্তা (১৯ মেট্রিক টন) ও পাটকেলঘাটা থানা সদরের মুকুন্দ ফ্লাওয়ার অ্যান্ড ডাল মিল থেকে ৩২৯ বস্তা (১৯ মেট্রিক টন) সরকারি গম উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত গমের মূল্য ১২ লাখ ১৮ হাজার ৩০০ টাকা।

sat

সাতক্ষীরা সদর থানা পুলিশের ওসি আসাদুজ্জামান বলেন, গম উদ্ধারের ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে একটি জিডি করা হয়েছে। সরকারি গম পাচারের সঙ্গে জড়িত চারজনকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইন ব্যবস্থা নেবে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) খুলনা কার্যালয়।

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) খুলনা কার্যালয়ের উপপরিচালক নীল কমল পাল বলেন, পাটকেলঘাটা থানা সদরের মুকুন্দ ফ্লাওয়ার অ্যান্ড ডাল মিল থেকে গম জব্দকালে মিল মালিককে পাওয়া যায়নি। তিনি পালিয়ে গেছেন। সরকারি গম উদ্ধারের ঘটনায় দুদুকের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

পাচারকৃত গম ক্রেতা মুকুন্দ ফ্লাওয়ার অ্যান্ড ডাল মিলের মালিক গোবিন্দ কুমার বলেন, কালিগঞ্জের খাইরুল ইসলামের কাছ থেকে ৪৫ টন গম কিনেছি আমি। গমগুলো কালিগঞ্জ উপজেলার বসন্তপুর খাদ্যগুদাম থেকে আমার মিলে আনার সময় ট্রাকটি আটক করে পুলিশ। এরপর শুক্রবার বিকেলে মিলে থাকা ৩২৯ বস্তা সরকারি গম জব্দ করা হয়।

কালিগঞ্জের বসন্তপুর খাদ্যগুদামের কর্মকর্তা মিলন কুমার বিশ্বাস বলেন, শুক্রবার গুদাম থেকে কাবিখা প্রকল্পের ৪৫ টন সরকারি গম ছাড় করা হয়েছে। গমগুলো কে কোথায় নিয়ে গেছেন তা আমি জানি না।

  • সর্বশেষ - সারাদেশ