ময়মনসিংহ, , ২৪ চৈত্র ১৪২৬ অনলাইন সংস্করণ

সিঙ্গাপুর-চীন ফেরতদের বাসায় ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না

  অনলাইন ডেস্ক

  প্রকাশ : 

সিঙ্গাপুর-চীন ফেরতদের বাসায় ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না

ফাইল ছবি

নভেল করোনাভাইরাস নিয়ে অযথা আতঙ্ক রোগটি প্রতিরোধের ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে পারে বলে মনে করছে সরকারের জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। 

শনিবার করোনাভাইরাস নিয়ে নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে আইইডিসিআর পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, বিদেশ ফেরত বিশেষ করে চীন ও সিঙ্গাপুর থেকে আসা ব্যক্তিদের বাড়িওয়ালারা বাসায় প্রবেশ করতে দিচ্ছেন না। একজন চীনা নাগরিক তার ভাড়া করা বাসায় উঠতে গেলে তাকে বাধা দেওয়া হয়। এমনকি তাকে বাসায় উঠতেই দেওয়া হয়নি। পরে তিনি হোটেলে রাত কাটিয়েছেন।

পরিচালক বলেন, করোনাভাইরাস নিয়ে অযথা গুজব ছড়ানো হচ্ছে। সারাদেশে আতঙ্ক ছড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। এটি কোনোভাবেই কাম্য নয়। এ ধরনের পরিস্থিতি রোগটি প্রতিরোধের ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করবে।

এ ধরনের কার্যক্রম পুরো দেশকে ঝুঁকিতে ফেলতে পারে এমন আশঙ্কা ব্যক্ত করে ডা. ফ্লোরা বলেন, চীন থেকে আসা ওই ব্যক্তিকে বাসায় প্রবেশ করতে না দিয়ে ঝুঁকিতে ফেলে দেওয়া হয়েছে। এ ধরনের রোগীর ক্ষেত্রে আইইডিসিআরের পরামর্শ হলো- চীন থেকে আসা ব্যক্তির শরীরে করোনার লক্ষণ আছে, তাকে বাসা-বাড়িতে আইসোলেশন করে রাখতে হবে। অথচ তাকে বাসায় প্রবেশ করতে না দিয়ে রোগটি ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকিতে ফেলে দেওয়া হলো। 

দেশে এখনও করোনা আক্রান্তের খোঁজ মেলেনি উল্লেখ কনে তিনি বলেন, দেশে করোনা সন্দেহে এ পর্যন্ত ৭৭ জনের শরীরের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। ওই নমুনা পর্যালোচনা করে কারও শরীরে করোনা সংক্রমণ সনাক্ত হয়নি।

সিঙ্গাপুরে করোনা আক্রান্ত বাংলাদেশিদের স্বাস্থ্যগত বিস্তারিত তথ্য জানিয়ে পরিচালক বলেন, সিঙ্গাপুরে আক্রান্ত এক বাংলাদেশির অবস্থা সংকটাপন্ন। তিনি আইসিইউতে চিকিৎসাধীন। তবে সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্যবিভাগ তার বিষয়ে এখনও হাল ছাড়েননি। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অন্য চার বাংলাদেশির অবস্থা অপরিবর্তিত রয়েছে।
  • সর্বশেষ - সারাদেশ