ময়মনসিংহ, , ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

সত্যিই ফ্লাওয়ারের গলায় ছুরি ধরেছিলেন ইউনিস, তবে...

  স্পোর্টস ডেস্ক

  প্রকাশ : 

সত্যিই ফ্লাওয়ারের গলায় ছুরি ধরেছিলেন ইউনিস, তবে...

পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দল যখন ক্রিকেট মাঠে ফেরার লক্ষ্যে অবস্থান করছে ইংল্যান্ডে, তখন ভয়াবহ এক অভিযোগ করেছেন দেশটির সাবেক কোচ গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার। তিনি বলেছেন একবার সকালে নাশতার টেবিলের বসে পরামর্শ পছন্দ না হওয়ায় তার গলায় ছুরি ধরেছিলেন পাকিস্তানের কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান ইউনিস খান।

এ বিষয়ে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) কিংবা ইউনিস খানের পক্ষ থেকে কোন মন্তব্য করা হয়নি। জাতীয় দলের ব্যাটিং কোচ হয়ে ইউনিসও এখন ইংল্যান্ডে অবস্থান করছেন। তবে পিসিবির একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে, সত্যিই ফ্লাওয়ারের গলায় ছুরি ধরেছিলেন ইউনিস খান। তবে সেটির ঘটনা ছিল ভিন্ন। যা ভুল বুঝেছেন গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার।

৪৯ বছর বয়সী পাকিস্তানের সাবেক কোচ গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার তার ভাই এন্ডি ফ্লাওয়ার আর উপস্থাপক নেইল ম্যানথর্পের সঙ্গে এক ক্রিকেট পডকাস্টে কথা বলছিলেন। সেখানেই এক পর্যায়ে আসে পাকিস্তানে কোচিং করানোর প্রসঙ্গ। কত রকম পরিস্থিতিতে পড়তে হয়, জানাতে গিয়ে গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার বলেন, ‘ইউনিস খান...তাকে শেখানো বেশ কঠিন কাজ ছিল।’

গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার যোগ করেন, ‘ব্রিসবেনে একটি টেস্টের কথা আমার মনে আছে। সেই ম্যাচ চলার সময় সকালের নাস্তায় তাকে কিছু ব্যাটিং পরামর্শ দেয়ার চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু তিনি আমার সেই পরামর্শ ভালোভাবে নেননি। এক পর্যায়ে আমার গলায় ছুরি ধরে বসেন, মিকি আর্থার আমার পাশেই ছিলেন। শেষ পর্যন্ত তাকে এই ঘটনায় মধ্যস্থতা করতে হয়েছে।’

এর বিপরীতে পিসিবির পক্ষ থেকে কোন বিবৃতি বা মন্তব্য করা হয়নি। তবে প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়াকে এক সূত্র বলেছেন, ‘ঘটনাটা তেমন গুরুতর কিছু ছিল না। ২০১৬ সালের অস্ট্রেলিয়া সফরে একদিন ব্রিসবেনে সকালে নাশতার টেবিলের বন্ধুত্বপূর্ণ মজা হয়েছিল শুধু। তবে গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার যেভাবে বলছে, তার পুরোটা সত্য নয়। ইউনিস তার দিকে ছুরি উঠিয়ে নাচাচ্ছিল এবং বলছিল যে, খাবার টেবিলের বসে কোন পরামর্শ না দেয় যেন।’

সুত্রটি আরও জানিয়েছে, এ বিষয়ে কোন মন্তব্য করবেন না ইউনিস খান। পিসিবির পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক কোন বক্তব্যের জন্য যোগাযোগ করা হলে তারা জানিয়েছে এখন ইংল্যান্ড সফরে থাকাকালীন এ বিষয়ে দলের পক্ষ থেকে কিছু বলা হবে না।

  • সর্বশেষ - খেলাধুলা