ময়মনসিংহ, , ২১ শ্রাবণ ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

নিখোঁজের পরদিন দুর্গাপুর সীমান্ত থেকে কিশোরীর লাশ উদ্ধার

নিখোঁজের পরদিন দুর্গাপুর সীমান্ত থেকে কিশোরীর লাশ উদ্ধার

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে নিখোঁজের একদিন পর আফসানা আক্তার (১৩) নামে এক কিশোরীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে কালিকাপুর খামারখালী এলাকায় পাহাড়ি টিলার গর্ত থেকে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। পরে শুক্রবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। আফসানা আক্তার কালিকাপুর গ্রামের দিনমজুর আবু ছালেকের মেয়ে। সে স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় লেখাপড়া করত।


যে স্থান থেকে আফসানার লাশটি উদ্ধার করা হয় তা তাদের বাড়ি থেকে আধাকিলোমিটার দূরে। আর ভারতীয় সীমান্তের কাঁটাতারের বেড়া থেকে প্রায় ২০০ গজ দূরে। এ ছাড়া ভরতপুর বিজিবি ক্যাম্প থেকেও প্রায় আধাকিলোমিটার দূরে।


পুলিশের ধারণা, দুর্বৃত্তরা মেয়েটিকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর ওই গর্তে ফেলে দেয়। লাশটি উদ্ধারের সময় গলায় ওড়না পেঁচানো ও মুখে কাপড় গুজা অবস্থায় ছিল।


ভরতপুর বিজিবি ক্যাম্প ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আফসানা আক্তার কচুর লতি সংগ্রহ করতে বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর সে আর ফিরেনি। অনেক খোঁজা-খুঁজির পর না পেয়ে পর দিন বৃহস্পতিবার দুপুরে স্থানীয় ভরতপুর বিজিবি ক্যাম্পে জানানো হয়।


পরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় স্থানীয় লোকজন পাহাড়ের টিলার ঝর্ণার গর্তে একটি লাশ দেখতে পায়। খবর পেয়ে পুলিশ রাত ৯টার দিকে লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। পরদিন শুক্রবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।


দুর্গাপুর থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান বলেন, ধারণা করা হচ্ছে দুর্বৃত্তরা শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে। তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে কি-না, এ সবকিছু মাথায় নিয়ে পুলিশ কাজ করছে। এ নিয়ে মেয়েটির বাবা থানায় একটি অভিযোগ করেছেন। তা মামলা হিসেবে রূপান্তর করা হবে।


এ ব্যাপারে ভরতপুর বিজিবি ক্যাম্পের ইনচার্জ নায়েক সুবেদার মোস্তফা কামাল বলেন, আমাদের ক্যাম্প থেকে ঘটনাস্থল প্রায় আধা কিলোমিটারের মতো হবে। মেয়েটি নিখোঁজ হলে তার পরিবারের লোকজন বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে আমাদের জানিয়েছিল। পরে আমরা ভারতীয় বিএসএফের সঙ্গে নিখোঁজের বিষয় নিয়ে কথা বলেছিলাম। বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশ পাহাড়ের ঝর্ণার গর্ত থেকে লাশ উদ্ধার করেছে।

  • সর্বশেষ - মহানগর