ময়মনসিংহ, , ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

মুক্তাগাছার ৩ ব্যবসায়ীকে বগুড়ায় আটকে নির্যাতনের অভিযোগ

মুক্তাগাছার ৩ ব্যবসায়ীকে বগুড়ায় আটকে নির্যাতনের অভিযোগ

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছার তিন চাল ব্যবসায়ীকে বগুড়ার শেরপুরের উত্তরবঙ্গ রাইস এজেন্সিতে আটক রেখে শারীরিক নির্যাতন ও টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আটকের দুইদিন পর আহতাবস্থায় ওই ব্যবসায়ীদের উদ্ধার করে শেরপুর থানা পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে মুক্তাগাছা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে উত্তরবঙ্গ রাইস এজেন্সির মালিক রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ করেন ব্যবসায়ী মোশাররফ হোসেন। এ সময় শেরপুর থানা পুলিশের বিরুদ্ধে মানসিক নির্যাতনের অভিযোগও করেন তিনি।


লিখিত অভিযোগে চাল ব্যবসায়ী মোশাররফ হোসেন বলেন, ময়মনসিংহের মুক্তাগাছার নশিরপুর গ্রামের বাসিন্দা মোশাররফ হোসেন ও তার সহযোগী আরও দুই ব্যবসায়ী বগুড়ার শেরপুর উপজেলার উত্তরবঙ্গ রাইস এজেন্সির মালিক রফিকুল ইসলামের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে চাল ব্যবসা করে আসছিলেন। বৃহস্পতিবার উত্তরবঙ্গ রাইস এজেন্সির মালিক রফিকুল ইসলাম মোবাইল ফোনে মোশাররফ হোসেনকে জানান, তার মোকামে উন্নতমানের চাল মজুদ আছে। টাকা নিয়ে গেলে তাকে চাল দেওয়া হবে। সে মোতাবেক মোশাররফ হোসেন তার দুইসহযোগীকে সঙ্গে নিয়ে ওইদিনই শেরপুরের উত্তরবঙ্গ রাইস এজেন্সিতে যান।


তিনি বলেন, তারা যাওয়া মাত্রই এজেন্সির লোকজন তাকে ও তার সহযোগীদের বেঁধে ফেলেন। পরে তাদের মারধর করে নগদ ৩ লাখ ১০ হাজার টাকা ও ব্যাংকের চেক ছিনিয়ে নেন। এর পরও আরও ২০ লাখ টাকার জন্য তাদের দড়ি দিয়ে বেঁধে মারধর করতে থাকেন। এ ঘটনায় ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে পুলিশের সাহায্য চান মোশাররফ হোসেনের পরিবারের সদস্যরা। পরে শেরপুর থানা পুলিশ শনিবার বিকেলে আহতাবস্থায় ব্যবসায়ী মোশাররফ হোসেন ও তার সহযোগী আলমগীর হোসেন ও সোহেল রানাকে উদ্ধার করে উত্তরবঙ্গ রাইস এজেন্সি থেকে।


উদ্ধারকৃত চাল ব্যবসায়ী মোশাররফ হোসেন লিখিত বক্তব্যে শেরপুর থানা পুলিশের বিরুদ্ধে মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ করে বলেন, তার স্ত্রী শাহিদা ইয়াসমিন দিপার কাছে ওই থানার তদন্তকারী র্মকর্তা এসআই ওসমান আলী ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন। টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তার স্ত্রীকে মাদক মামলায় গ্রেফতারের হুমকিসহ মানসিকভাবে চাপে রাখা হয়।


তবে অভিযোগ অস্বীকার করে বগুড়ার শেরপুর থানার ওসি মিজানুর রহমান বলেন, ব্যবসায়ীকি লেনদেনে মোশাররফ হোসেনসহ তিনজনকে আটক রাখে উত্তরবঙ্গ রাইস এজেন্সির লোকজন। খবর পেয়ে সেখান থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়। তবে ওই ব্যবসায়ীর স্ত্রীর কাছে টাকা দাবি অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা।

  • সর্বশেষ - মহানগর