ময়মনসিংহ, , ২৪ চৈত্র ১৪২৬ অনলাইন সংস্করণ

ঢাবিতে সান্ধ্য কোর্সের ভর্তি কার্যক্রম স্থগিত

  অনলাইন ডেস্ক

  প্রকাশ : 

ঢাবিতে সান্ধ্য কোর্সের ভর্তি কার্যক্রম স্থগিত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়মিত কোর্সের বাইরে চালু থাকা সান্ধ্য কোর্সসহ অনিয়মিত সব কোর্সের নতুন শিক্ষার্থী ভর্তির সব ধরনের কার্যক্রম আগামী পাঁচ সপ্তাহের জন্য স্থগিত করা হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে সান্ধ্য কোর্স পরিচালনার একটি যৌক্তিক ও যুগোপযোগী নীতিমালা প্রণয়ন করতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক নাসরীন আহমাদকে প্রধান করে একটি কমিটি করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা পরিষদের (একাডেমিক কাউন্সিল) সভা শেষে সোমবার এই সিদ্ধান্তের কথা জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অংশ নেবে কি না এবং চলমান সান্ধ্য কোর্সের ধরনে পরিবর্তন আসবে কি না, এ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে সোমবার বেলা তিনটা থেকে রাত দশটা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে এই সভা হয়।

তর্ক-বিতর্ক ও উত্তপ্ত বাক্যবিনিময়ের পর রাত দশটায় শিক্ষা পরিষদের সভা শেষ হয়। সভা শেষে উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান সান্ধ্য কোর্সের বিষয়ে ওই সিদ্ধান্তের কথা জানান। তিনি বলেন, সান্ধ্য কোর্স পরিচালনার সময়োপযোগী নীতিমালা করতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক নাসরীন আহমাদকে প্রধান করে একটি কমিটি করা হয়েছে। কমিটিতে আরও আছেন সহ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. কামাল উদ্দীন, ১৩টি অনুষদের ডিন ও দুটি ইনস্টিটিউটের (আইবিএ এবং শিক্ষা ও গবেষণা) পরিচালক। কমিটি পাঁচ সপ্তাহের মধ্যে নীতিমালা তৈরি করবে।

সভার প্রথম ঘণ্টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষার বাইরে রাখার ব্যাপারে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয়। পরের প্রায় ছয় ঘণ্টা সান্ধ্য কোর্সের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়। সভায় সান্ধ্য কোর্স পর্যালোচনা ও যৌক্তিকতা যাচাই কমিটির প্রতিবেদন নিয়ে শিক্ষকেরা তর্কে জড়ান। এ সময় ওই কমিটির প্রধান বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদের ডিন তোফায়েল আহমদ চৌধুরী কয়েকজন শিক্ষকের সমালোচনার জবাবও দেন। শিক্ষকদের প্রায় সবাই সান্ধ্য কোর্সের পক্ষে বিভিন্ন যুক্তি তুলে ধরেন।

  • সর্বশেষ - সারাদেশ