ময়মনসিংহ, , ১৫ আশ্বিন ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

সুশান্তের মৃত্যুতে অনেকটা বদলে গেছে বলিউড!

  বিনোদন ডেস্ক

  প্রকাশ : 

সুশান্তের মৃত্যুতে অনেকটা বদলে গেছে বলিউড!

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুরহস্যের এখনও নিষ্পত্তি হয়নি। কিন্তু তার অকালে চলে যাওয়ার মাত্র এক মাসের মধ্যে বলিউডের চেনা চিত্রে আমূল পরিবর্তন এসেছে। জনমানসে ধাক্কা খেয়েছে বড় বড় প্রযোজনা সংস্থা এবং স্টারকিডদের ভাবমূর্তি। আগে বলিউডের চেনা ও সহজ ফর্মুলা ছিল, গল্প যাই হোক না কেন, তারকাদের সন্তানরা (স্টারকিড) অভিনয় করলে সাফল্য অনেকটাই নিশ্চিত। সঙ্গে অবশ্য থাকতে হত একটা বড় ব্যানার।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ইতোমধ্যেই দাবি উঠেছে, স্টারকিডদের বয়কট করার। ফলে অভিনয়ের সুযোগ তো বটেই, তাদের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে এনডোর্সমেন্ট ও বিভিন্ন ইভেন্টে হাজিরার ক্ষেত্রেও।

স্টারকিডদের ঘিরে দর্শকদের মধ্যে উন্মাদনা ছিল বহু দিনই। এখন সেটা বদলে গেছে ঘৃণায়। ফলে ইন্ডাস্ট্রিতে কদর বাড়তে চলেছে বহিরাগতদের। রাজকুমার রাও, কার্তিক আরিয়ান, আয়ুষ্মান খুরানার মতো অভিনেতা, যারা পারবারিক ধারা ও গডফাদার ছাড়াই অভিনয়কে পেশা হিসেবে নিয়েছেন, তাদের সমাদর বেড়েছে অনেকটাই।

shushantho-1

স্বজনপোষণ নিয়ে খোলাখুলি কথা বলছেন সাধারণ মানুষ। এমনকি তারকারাও। দর্শকরা এবার বুঝতে পারছেন কেন সুশান্ত সিং রাজপুতের ব্যাকগ্রাউন্ড ডান্সার হিসেবে কেরিয়ার শুরু করে দীর্ঘ কয়েক দশক প্রয়োজন হয় নিজেকে অভিনেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে।

আলিয়া ভাট, বরুণ ধাওয়ানদের মতো স্টারকিডরা যে প্রথম থেকেই কতটা এগিয়ে থাকেন, সেটাই ক্রমশ স্পষ্ট হচ্ছে দর্শকদের কাছে। ফলে তাদের প্রতিভার পাশাপাশি সহজ সাফল্যের অন্য রসায়নের সমীকরণও জটিল থেকে ক্রমশ সহজ হয়ে উঠছে।

দর্শকদের বিরাগভাজন হয়ে এখন স্টারকিডরা একের পর এক সোশ্যাল মিডিয়া ছেড়ে যাচ্ছেন। সোনাক্ষী সিনহা টুইটার ছেড়ে দিয়েছেন। আয়ুষ শর্মা তো অনেক আগেই এই পথে হেঁটেছেন। অনেকে ইনস্টাগ্রামের কমেন্ট সেকশন ব্লক করে রাখছেন।

shushantho-2

সুশান্তের মৃত্যুর পর থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় নীরব করণ জোহর। সম্প্রতি তিনি প্রাইভেট অ্যাকাউন্ট খুলেছেন। সেখানে তাকে শুধু ইন্ডাস্ট্রির বন্ধুবান্ধবই অনুসরণ করতে পারেন।

হু হু করে পড়ে গেছে স্টারকিডদের ভক্ত সংখ্যা। গত এক মাসে করণ জোহর, আলিয়া ভাট, সালমান খান, সোনম কাপুরদের ফ্যান ফলোয়িং কমে গেছে উল্লেখজনকভাবে।

এসে গেছে ভার্চুয়াল নেপোমিটার। এর সাহায্যে মাপা হবে কোন ছবিতে কতটা নেপোটিজম বা স্বজনপোষণ সক্রিয়। বলা হচ্ছে কোনও ছবি ৩০ শতাংশের বেশি স্বজনপোষণ-দোষে দুষ্ট হলে সেটা বয়কট করা উচিত। এই মাপকাঠিতে ‘সড়ক টু’-এর মান এসেছে ৯৮ শতাংশ নেপোটিক।

shushantho-3

‘ডিপ্রেশন’ বা মানসিক অবসাদ শব্দ দুটি আগের থেকে অনেক বেশি গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে। আগে এই শব্দ দুটির অর্থ অনেকের কাছেই ছিল প্রায় পাগলামির সমার্থক। এখন দীপিকা পাড়ুকোন, বিদ্যা বালানের মতো তারাকারা অবসাদ নিয়ে কথা বলছেন।

সুশান্তের মৃত্যুতে সাধারণ মানুষও বুঝেছেন অবসাদের মতো মনের অসুখ যে কারও যখন খুশি হতে পারে। লুকিয়ে না রেখে এই অসুখের চিকিৎসা করাতে হবে দ্রুত।

shushantho-4

সুশান্তের রহস্যমৃত্যুতে আরও একটি পরিবর্তন এসেছে, যা বেশ বিস্ময়কর। লোকের মধ্যে প্যারানরমাল জিনিস নিয়ে আগ্রহ বেড়েছে। ইতোমধ্যেই অনেকে নিজেকে প্যারানরমাল বিশেষজ্ঞ বলে দাবি করে ইউটিউবে ভিডিও পোস্ট করেছেন। সেখানে তারা দাবি করেছেন, সুশান্তের সঙ্গে কথা বলার।

রহস্যমৃত্যু এর আগেও বলিউডে হয়েছে। কিন্তু সুশান্তের মৃত্যুতে সোশ্যাল মিডিয়ায় যেন একটানে পাল্টে গেছে চেনা বলিউডের পুরনো চিত্র। জনমতের আশা, এবার ধীরে ধীরে টিনসেল টাউনের প্রদীপের নীচের অন্ধকার কিছুটা হলেও ফিকে হবে।

সূত্র : আনন্দবাজার

  • সর্বশেষ - বিনোদন