ময়মনসিংহ, , ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

কলমাকান্দায় তৃতীয় দফায় বন্যা, দুর্ভোগে প্রায় ২০ হাজার মানুষ

কলমাকান্দায় তৃতীয় দফায় বন্যা, দুর্ভোগে প্রায় ২০ হাজার মানুষ

নেত্রকোণার কলমাকান্দায় তৃতীয় দফায় আবারও বন্যা হানা দিয়েছে। প্রথম ও দ্বিতীয় দফার বন্যার রেশ না কাটতেই কয়েকদিনের ব্যবধানে অতি বৃষ্টিপাত ও পাহাড়ি ঢল এবং পাশ্ববর্তী জেলা সুনামগঞ্জের পানি উল্টো আসার কারণে কলমাকান্দায় উব্দাখালী নদীর পানি ৬০ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ২৫ সে.মি. ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। এ দিকে উব্দাখালীর পাশাপাশি অভ্যন্তরীণ নদ-নদীর পানিও বাড়ছে। নদী তীরবর্তী ও নিম্নাঞ্চল ফের প্লাবিত হচ্ছে। প্রায় ৫০টি গ্রামের প্রায় ২০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। তাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থের স্বীকার হয়েছেন নিম্ম আয়ের লোকজন।


গত ৪৮ ঘণ্টায় ১০৪ মি. মি. বৃষ্টিপাত রের্কড করা হয়েছে। থেমে থেমে বৃষ্টিপাত হচ্ছে। পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ফের কলমাকান্দা সদরসহ, বাউশাম, বিশরপাশা, বরুয়াকোনা ও বড়খাঁপন কাঁচা ও পাঁকা সড়কের উপর দিয়ে পানি বয়ে যাচ্ছে। এতে করে আবারও উপজেলায় রাস্তা-ঘাটে ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতির হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। উপজেলার খাল-বিল, ছড়া ও জলাশয়সমূহ পানিতে ভরে গেছে। উপজেলার সদরসহ নদীর তীরবর্তী ও নীচু এলাকার ঘরবাড়িগুলো প্লাবিত হয়েছে। ফের তৃতীয় বারের মতো উপজেলায় বন্যা হয়েছে।


এদিকে বুধবার সকালে কলমাকান্দায় ৫৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রের্কড করা হয়েছে। অব্যাহত ভারি বৃষ্টিপাত ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের কারণে সৃষ্ট বন্যায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন এলাকার জনসাধারণ। ভারতের মেঘালয়ে বৃষ্টি বৃদ্ধি পেলে পাহাড়ি ঢলে কলমাকান্দা উপজেলায় বড় বন্যার আকার ধারণ করতে পারে।


পানি উন্নয়ন বোর্ডের পানি পরিমাপক (গেজ রিডার) মো. মোবারক হোসেন বলেন, অতি বর্ষণে ও সুনামগঞ্জের পানি উল্টো আসার কারণে কলমাকান্দার প্রধান নদী উব্দাখালী নদীর ডাক বাংলা পয়েন্টে ৪৮ ঘন্টায় ৬০ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ২৫ সে.মি. ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। বুধবার সকাল ১০টা পর্যন্ত পানি বৃদ্ধি অব্যাহত ছিল।

  • সর্বশেষ - মহানগর