ময়মনসিংহ, , ৯ কার্তিক ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

আইপিএলের কারণে কপাল খুলে যাচ্ছে ৫০ তরুণের!

  স্পোর্টস ডেস্ক

  প্রকাশ : 

আইপিএলের কারণে কপাল খুলে যাচ্ছে ৫০ তরুণের!

করোনাভাইরাসের কারণে ভারতে নিজেদের মাটিতে আইপিএল আয়োজন করা সম্ভব হচ্ছে না। নিয়ে যেতে হলো বিদেশে। আইপিএল এখন হয়ে গেলো প্রবাসী। আরব আমিরাতের মাটিতে ১৯ সেপ্টেম্বর শুরু হওয়ার কথা এবারের আইপিএল।


করোনার সংক্রমনের মধ্যেই আয়োজন হচ্ছে এবারের আইপিএল। সুতরাং, মানতে হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধির কঠোর নিয়ম। প্রতিটি ফ্রাঞ্চাইজি কতজন খেলোয়াড় এবং কর্মকর্তা নিয়ে আরব আমিরাতে অবস্থান করতে পারবে, সে সব বিষয় নিয়ে এরই মধ্যে নীতিমালা জারি করে দিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)।


তবে, প্রতিটি ফ্রাঞ্চাইজি এখন আরব আমিরাতে দলের ক্রিকেটারদের বাইরে আরও বেশ কয়েকজন তরুণ বোলারকেও সঙ্গী করে নিচ্ছে। এক কথায় যাদের পরিচয়, নেট বোলার। প্রতিটি দলের অনুশীলনে নেটে ব্যাটসম্যানদের বোলিং করার প্রয়োজন পড়ে। এ কারণে স্বাভাবিকভাবেই নেট বোলার ব্যবহার করা হয়। নেট বোলারদের আবার স্বপ্ন থাকে, সেখানে ভালো করে কোচদের নজরে পড়ার। তাহলেই ক্যারিয়ারের বিশাল দরজা খুলে যাবে তাদের সামনে।


কিন্তু আরব আমিরাতে যে প্রটোকলে আইপিএল আয়োজন হচ্ছে, তাতে নেট বোলারের বিষয়টি প্রথমে চিন্তাই করেনি। অবশেষে ৮টি ফ্রাঞ্চাইজি মোট ৫০ তরুণকে বাছাই করে নিয়েছে, যাদেরকে নিয়ে যাওয়া হবে আরব আমিরাতে। অর্থ্যাৎ, আইপিএলের কল্যাণে এখন কপাল খুলতে বসেছে সেই ৫০ তরুণ বোলারের!


কলকাতা নাইট রাইডার্স, চেন্নাই সুপার কিংস, দিল্লি ক্যাপিটালস মূলতঃ অনূর্ধ্ব-১৯, অনূর্ধ্ব-২৩ ক্রিকেটারদের তালিকায় রেখেছে। এরা আমিরাতে প্রায় মাসখানেক নেটে বোলিং করবেন। এতদিন স্থানীয় বোলারদের ডাকা হতো নেটে। এবার জৈব-সুরক্ষিত পরিবেশের কথা মাথায় রেখে যোগ্য নেট বোলার জোগাড় করতে মাঠে নেমেছে ফ্র্যাঞ্চাইজিরা।


এমন সুযোগে উচ্ছ্বসিত এবারই রনজি ক্রিকেটে অভিষেক হওয়া কলকাতার আকাশদীপ। কলকাতার মিডিয়াকে তিনি বলেন, ‘স্টিভেন স্মিথের মতো বিশ্বসেরা ব্যাটসম্যানদের বোলিং করার সুযোগ এসেছে। আমার কাছে এটা বিরাট প্রাপ্তি। অনেক কিছু শিখতে পারব। সেই অভিজ্ঞতা আগামী বছর বাংলার হয়ে কাজে লাগাব।’


অতীতে কেকেআর ও দিল্লি দলে থাকা সায়নকে নিয়েছে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। সায়নের কথায়, ‘লকডাউনের এই বদ্ধ জীবনে এটাই একমাত্র প্রাপ্তি। দারুণ সুযোগ। নেটে লোকেশ রাহুল, ক্রিস গেইলকে বল করতে চাইব। অনেক কিছু শিখব।’


কেকেআরের ভাবনায় রয়েছে ১০ নেট বোলার। নাইটদের অ্যাকাডেমির কোচ অভিষেক নায়ারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে এ ব্যাপারে। এক কর্মকর্তা বলেন, ‘এই তালিকায় বেশ কয়েকজন রয়েছে, যারা রনজি ট্রফিতে খেলেছে। বাকিরা জাতীয় পর্যায়ে বয়সভিত্তিক টুর্নামেন্ট খেলেছে।’


দিল্লি ক্যাপিটালসের তালিকায় রয়েছে ছয়জন বোলার। বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু নিজেদের অ্যাকাডেমি থেকে বোলার নেবে। দায়িত্বে থাকা আরসিবির সিনিয়র কর্মকর্তা বলছেন, ‘দুবাইয়ের স্লো উইকেট এবং আর্দ্রতার কথা ভেবে বাঁ-হাতি স্পিনার এবং রিস্ট স্পিনার বেশি থাকছে নেটে।’


ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস প্রায় ১০ জন নেট বোলারকে নিয়ে যাওয়ার কথা ভাবছে। টুর্নামেন্ট শুরু হওয়া পর্যন্ত তারা থাকবেন। সিএসকে’র শিবিরে অধিকাংশ বিদেশিকে পাওয়া যাচ্ছে না। জানা গেছে, দ্বিতীয়বার বাবা হতে যাওয়া ফ্যাফ ডু প্লেসি ১ সেপ্টেম্বর যোগ দেবেন। তার সঙ্গেই আসবেন এনগিদি। ওয়াটসন, কোচ ফ্লেমিং, ব্যাটিং কোচ মাইক হাসি ২২ তারিখ দুবাইয়ে যোগ দেবেন সিএসকে-এর সঙ্গে।


আরব আমিরাতের অবকাঠামো খতিয়ে দেখতে আগস্টের তৃতীয় সপ্তাহেই দুবাইয়ে যাবেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রতিনিধিরা। আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল, বোর্ডের অন্তবর্তীকালীন সিইও হেমঙ্গ আমিনরা দুবাইয়ে ৬ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকবেন। এরপর কাজ শুরু করবেন। আইপিএল আয়োজনের জন্য এদিনই বিসিসিআইয়ের ছাড়পত্র পেয়েছে এমিরেটস ক্রিকেট বোর্ড।

  • সর্বশেষ - খেলাধুলা