ময়মনসিংহ, , ৬ বৈশাখ ১৪২৮ অনলাইন সংস্করণ

১০০ ইমাম ও ধর্ম প্রচারক বরখাস্ত করলো সৌদি

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

১০০ ইমাম ও ধর্ম প্রচারক বরখাস্ত করলো সৌদি

মুসলিম ব্রাদারহুডকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে নিন্দা করতে ব্যর্থ হওয়ায় ১০০ ইমাম ও ইসলাম প্রচারককে (দাঈ) বরখাস্ত করেছে সৌদি আরব। মুসলিম ব্রাদারহুডের ব্যাপারে দেশটির ইমাম ও দাঈদের কাছে সরকারি নির্দেশনা ছিল যে, তাদের বিরুদ্ধে কথা বলা ও সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে তাদের নিন্দা জানানো। ১০০ ইমাম ও দাঈকে বরখাস্ত করায় বিশ্বব্যাপী সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার হলেও দেশটিতে সরকারের রোষাণলে পড়ার ভয়ে সবাই চুপ আছেন। খবর সৌদি গেজেট, মিডল ইস্ট মনিটর।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম মিডল ইস্ট মনিটর ও সৌদি গেজেটে প্রকাশিত খবরে জানা যায়, সৌদি আরবের ইসলামিক অ্যাফেয়ার্স সংক্রান্ত মন্ত্রণালয় থেকে গত মাসের ১৩ নভেম্বর মোতাবেক ২৭ রবিউল আউয়াল শুক্রবার মসজিদে জুমআর খুতবায় প্রচারের জন্য মুসলিম ব্রাদারহুড সম্পর্কে যে নির্দেশনা জারি করা হয়। তাতে উল্লেখ ছিল-

‘মুসলিম ব্রাদারহুডকে সন্ত্রাসী দল হিসেবে উল্লেখ করে বক্তব্য দেয়ার নির্দেশনা জারি করা হয়। ইসলামের নামে ভুল শিক্ষা দিচ্ছে মুসলিম ব্রাদারহুডের সদস্যরা। তারা সমাজে বিভাজন তৈরির চেষ্টা করছে। তাই দেশের প্রত্যেক ইমাম ও ইসলামিক ধর্মপ্রচারক তাদের ব্যাপারে নিন্দা ও বিরুদ্ধে সতর্কতামূলক অবস্থানের বিষয়টি প্রচার করতে নির্দেশ দেয়া হচ্ছে।'

দেশটির সিনিয়র স্কলার্স কাউন্সিলের বিবৃতিতে বলা হয়েছে যে, মুসলিম ব্রাদারহুড একটি সন্ত্রাসবাদী সংগঠন। যা ইসলামী জীবনযাত্রার প্রতিনিধিত্ব করে না। সিনিয়র স্কলার্স কাউন্সিলটি মুসলিম ব্রাদারহুডের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে আরও বলেছিল যে, এটি একটি বিকৃত গোষ্ঠী; যা শাসকদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহের ডাক দেয়।'

এতে আরও বলা হয়, প্রতি শুক্রবার জুমআর নমাজের পর মুসলিম ব্রাদারহুডের উদ্দেশ্যের বিষয়ে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে হবে। মুসলিম ব্রাদারহুড সংগঠনটি কীভাবে ধর্মকে নিজেদের স্বার্থে ব্যবহার করতে চাইছে তার স্বরূপ তুলে ধরতে হবে। তারা ইসলামের প্রকৃত শিক্ষা মানুষের কাছে পৌঁছনোর পরিবর্তে নিজেদের দলীয় স্বার্থ প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছে বলেও মানুষকে জানাতে হবে।’

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে মুসলিম ব্রাদারহুডকে জঙ্গি সংগঠন বলে ঘোষণা দেয় সৌদি। কারণ ব্রাদারহুড সুন্নি মতবাদে বিশ্বাসী। বিশ্লেষকরা বলছেন, তারা সুন্নি হিসেব একটি ভাল ব্র্যান্ড। তারা রাজনীতিতে অংশ নিলে এবং নির্বাচনী বৈধতা পেলে, সৌদি আরব ক্ষতিগ্রস্ত হবে। ইসলামি রাষ্ট্র হিসেবে সৌদির যে নিয়ন্ত্রণ তাতে ভাটা পড়তে পারে। অস্তিত্বগত হুমকি হিসেবে দেখা হয় ব্রাদারহুডকে। কারণ এটি ইসলামি রাজনীতির একটি ভিন্ন মডেলের প্রস্তাব দেয় সৌদি রাষ্ট্রকে। সেকারণে ব্রাদারহুডকে জঙ্গি বানিয়ে দেয় সৌদিসহ অন্যান্য দেশগুলো।

  • সর্বশেষ - অতিথি কলাম