ময়মনসিংহ, , ৩ বৈশাখ ১৪২৮ অনলাইন সংস্করণ

নির্বাচনী প্রচারে বাঁধা : ডিসি-ইউএনওর প্রত্যাহার দাবি

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

নির্বাচনী প্রচারে বাঁধা : ডিসি-ইউএনওর প্রত্যাহার দাবি

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে প্রচারণায় বাঁধার অভিযোগ তুলে জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ইউএনও) প্রত্যাহরের দাবি জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থী তাহমিনা পারভীন বীথি।


শনিবার (৯ জানুয়ারি) বিকেলে জেলা প্রেস ক্লাবে আয়োজিত সাংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি জানান। এ সময় তাহমিনার নির্বাচন পরিচালনা টিমের সদস্য আনোয়ার হোসেন এবং নিয়াজ মোর্শেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


লিখিতি বক্তব্যে নারিকেল গাছ প্রতীকের প্রার্থী তাহমিনা পারভীন বীথি জানান, নৌকার প্রার্থীর লোকজন আমার সমর্থকদের দুটি মোটরসাইকেল এবং একটি প্রচারের মাইক ভেঙে দিয়েছে। কয়েকজন কর্মীর ওপর হামলাও করেছে। এছাড়া কর্মী ও ভোটারদের নানাভাবে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। নির্বাচনী আচরণবিধি লংঘন করে প্রতিদিনই সন্ত্রাসী মহড়া চলছে। ফলে মোহনগঞ্জ পৌরসভা এখন আতঙ্কের নগরীতে পরিণত হয়েছে।


তিনি আরও জানান, এসব বিষয় নির্বাচন কমিশন, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার এবং স্থানীয় উপজেলা এবং থানায় একাধিকবার জানালেও কোনো প্রতিকার পাইনি। তাই অবাধ, নিরপেক্ষ এবং সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রয়োজনে তিনি জেলা প্রশাসক ও স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রত্যাহার দাবি জানান।


জানা গেছে, তাহমিনা পারভীন বীথি মোহনগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মরহুম আব্দুল কদ্দুছ আজাদের মেয়ে। তার মা জ্যোৎস্না আজাদ উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক। তাছাড়া তিনি নিজেও উপজেলা ছাত্রলীগের ছাত্রী বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন। দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী অপর দুই প্রার্থী হলেন আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট লতিফুর রহমান রতন (নৌকা) ও আবু হেনা মোস্তফা (মোবাইল)। বিএনপি থেকে মাহবুবুন্নবী শেখকে মনোনয়ন দেয়া হলেও ঋণ খেলাপির জটিলতায় প্রার্থীতা স্থগিত রয়েছে।

  • সর্বশেষ - ময়মনসিংহ অঞ্চল