ময়মনসিংহ, , ১২ মাঘ ১৪২৬ অনলাইন সংস্করণ

ইতিহাস বিকৃতকারীদের রুখে দেয়ার প্রত্যয়

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

ইতিহাস বিকৃতকারীদের রুখে দেয়ার প্রত্যয়
ছবি: আব্দুল গনি

বিনম্র শ্রদ্ধা ও ভালবাসায় জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ, ইতিহাস বিকৃতকারীদের রুখে দেয়া, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশকে এগিয়ে নেওয়া, গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি আদায়, সব যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসি কার্যকর, দেশবিরোধী সব ষড়যন্ত্র রুখে দিয়ে উন্নত-সমৃদ্ধ অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ের মধ্য দিয়ে যথাযোগ্য মর্যাদায় ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে শনিবার শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালন করেছে দেশবাসী।

স্বাধীনতার ঊষালগ্নে জাতির সূর্যসন্তানদের হারানোর বিষাদময় দিনে বেদনায় আচ্ছন্ন মন, শোকে মুহ্যমান হৃদয়। এমনই এক বেদনাবিধুর পরিবেশে জাতি স্মরণ করেছে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের। শ্রদ্ধা জানাতে আসা মানুষের কণ্ঠে ছিল ক্ষোভ।

এছাড়া বুদ্ধিজীবী দিবসের ঠিক একদিন আগে যুদ্ধাপরাধী আব্দুল কাদের মোল্লাকে ‘শহীদ’ বলায় তারা তীব্র নিন্দা জানায় দৈনিক সংগ্রামের প্রতি। সেইসঙ্গে সংগ্রামের প্রকাশনা বন্ধের দাবিও ছিল তাদের কণ্ঠে।

সাম্প্রদায়িক শক্তির ধারক-বাহকদের প্রত্যাখ্যান এবং নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা জাগিয়ে তুলতে সঠিক ইতিহাসের চর্চার দাবীও ছিল মানুষের মাঝে। এদিকে একাত্তরে প্রাণ হারানো সেই সূর্য সন্তানদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শহীদ সন্তান ও মুক্তিযোদ্ধারা। পাশাপাশি এখনও ঘাপটি মেরে থাকা একাত্তরের ঘাতক ও তাদের দোসরদের চেহারা উন্মোচনের আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

সকাল মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সকাল ৭টা ৫ মিনিটে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ শ্রদ্ধা জানান। এর আগে রাষ্ট্রপতি মিরপুর বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে এসে পৌঁছলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে অভ্যর্থনা জানান। শ্রদ্ধা নিবেদনের পর রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী সেখানে কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন।

এরপর প্রধানমন্ত্রী ধানমন্ডিতে যান এবং বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের সামনে স্থাপিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিস্তম্ভে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর পুষ্পস্তবক অর্পণকালে সেখানে জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরিন শারমিন চৌধুরী, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, মন্ত্রী পরিষদ সদস্যবৃন্দ, সংসদ সদস্যগণ, তিন বাহিনীর প্রধানগণ, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র এবং উচ্চপদস্থ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানি বাহিনীর চালানো গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি আদায়ের দাবি এসেছে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে। সকালে রায়েরবাজার বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম, মুক্তিযুদ্ধ-৭১ এর মহাসচিব হারুন হাবীব এই দাবি জানিয়ে বলেন, ‘গণহত্যার জাতীয় স্বীকৃতি এসেছে। এখন জাতিসংঘের স্বীকৃতি আদায়ের দাবি জানাচ্ছি।’

একাত্তরের যুদ্ধাপরাধে ফাঁসি কার্যকর হওয়া জামায়াত নেতা কাদের মোল্লাকে দৈনিক সংগ্রাম ‘শহীদ’ লিখে যে ঔদ্ধত্য দেখিয়েছে, তা ক্ষমা করা যায় না বলে মন্তব্য করেন হারুন হাবীব।

  • সর্বশেষ - জাতীয়