ময়মনসিংহ, , ২০ চৈত্র ১৪২৬ অনলাইন সংস্করণ

হাসপাতালগুলোতে ব্যাপক প্রস্তুতি

  অনলাইন ডেস্ক

  প্রকাশ : 

হাসপাতালগুলোতে ব্যাপক প্রস্তুতি
কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আইসোলেশন ইউনিট খোলা হয়েছে
করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সর্বোচ্চ সতর্কতা ও প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। হাসপাতালগুলোতে প্রস্তুত রাখা হয়েছে আইসোলেশন শয্যা। আমাদের প্রতিনিধি ও সংবাদদাতাদের পাঠানো খবর—

লক্ষ্মীপুরে প্রস্তুত ১০০ শয্যা:

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি জানান, লক্ষ্মীপুরে ১০০ শয্যা প্রস্তুত রাখা হয়েছে। করোনা ভাইরাসের সম্ভাব্য পরিস্থিতি মোকাবিলায় হাসপাতালে বেড প্রস্তুতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিভিল সার্জন ডা. আবদুল গাফফার। এছাড়া এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হটলাইন ০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১ ও ০১৯২৭৭১১৭৮৪ নম্বরে যোগাযোগ করার জন্য প্রচার করতে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বলা হয়েছে।

কুমিল্লায় প্রস্তুত আইসোলেশন শয্যা ও মেডিক্যাল টিম:

কুমিল্লা প্রতিনিধি জানান, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কুমিল্লা জেলা সদরসহ ১৬ উপজেলায় প্রায় ১০০ আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়া ১৯টি মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ২০ শয্যা, কুমিল্লা সদর (জেনারেল) হাসপাতালে ১০ শয্যা, জেলার ১৬টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চার শয্যা করে আইসোলেশনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

কুমিল্লা সিভিল সার্জন ডা. মো. নিয়াতুজ্জামান জানান, গত রবিবার দেশে করোনা রোগী শনাক্তের পর স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে নির্দেশনা পাওয়ার পর আইসোলেশন ওয়ার্ড প্রস্তুত করা হয়েছে।

শরীয়তপুরে ৩০ আইসোলেশন কর্নার প্রস্তুত:

শরীয়তপুর প্রতিনিধি জানান, শরীয়তপুর সদরসহ ছয় উপজেলায় ৩০ আইসোলেশন কর্নার প্রস্তুত করা হয়েছে বলে শরীয়তপুরের সিভিল সার্জন ডা. এসএম আব্দুল্লা আল মুরাদ জানান।

এছাড়া জাজিরা ফায়ার ব্রিগেডে ৩০ ও দুই কমিউনিটি ক্লিনিকে ১০টি করে ২০টি কোয়ারেন্টাইন বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের বলেন, ইতালি ফেরত ব্যক্তিদের সঙ্গে দেখা হওয়া ব্যক্তিদের পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

এছাড়া করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জেলার ছয়টি উপজেলার ৬৫টি ইউনিয়নে স্বাস্থ্যকর্মীদের সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে।

দিনাজপুরে ৯৫ বিশেষায়িত শয্যা প্রস্তুত:

দিনাজপুর প্রতিনিধি জানান, করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সর্বোচ্চ সতর্কতা ও প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে দিনাজপুর স্বাস্থ্য বিভাগ। গঠন করা হয়েছে ১৩ সদস্যবিশিষ্ট জেলা কমিটি। এর মধ্যে কাহারোল উপজেলায় ২৫ শয্যাবিশিষ্ট একটি নবনির্মিত হাসপাতাল প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল কুদ্দুছ জানান, করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় দিনাজপুর জেলা প্রশাসককে সভাপতি ও সিভিল সার্জনকে সদস্য সচিব করে ১৩ সদস্যবিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রত্যেক উপজেলায় একজন করে চিকিত্সককে ঢাকা থেকে করোনা ভাইরাস বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।

  • সর্বশেষ - সারাদেশ