, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮ অনলাইন সংস্করণ

বাবরি মসজিদ ধ্বংসে অংশ নেয়া সেই নওমুসলিমের রহস্যজনক মৃত্যু

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

বাবরি মসজিদ ধ্বংসে অংশ নেয়া সেই নওমুসলিমের রহস্যজনক মৃত্যু

ভারতের উত্তর প্রদেশের অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ধ্বং’স’কা’রী সাবেক করসেবক মোহাম্মদ আমেরের র’হ’স্য’জ’ন’ক মৃ’ত্যু হয়েছে।

শুক্রবার তেলেঙ্গানা প্রদেশের হায়দরাবাদ শহরে নিজ বাড়িতে তার মৃ’ত্যু হয়েছে বলে পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানায় ভারতীয় সংবাদমাধ্যম।

খবরে বলা হয়, হায়দরাবাদের পুরনো শহরে হাফিজ বাবা নগর মহল্লায় মোহাম্মদ আমেরের বাড়ি থেকে বাজে গ’ন্ধ পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়।

খবর পেয়ে কাছাকাছি থাকা কাঞ্চনবাগ পুলিশ স্টেশন থেকে একটি দল এসে বাড়িতে ঢুকে তার লা’শ উদ্ধার করে।

কাঞ্চনবাগ পুলিশ স্টেশনের ইন্সপেক্টর জে ভেঙ্কট রেড্ডি বলেন, ‘মৃ’ত্যু’র কারণ এই মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না। যদি আমরা তার পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকে মৃ’ত্যু’র বিষয়ে সন্দেহ করে কোনো অভিযোগ পাই, পুলিশ তখন ম’য়’না’ত’দ’ন্ত করবে এবং মামলা লিপিবদ্ধ করবে।’

পূর্বে বলবির সিং নামে পরিচিত মোহাম্মদ আমের উ’গ্র হিন্দুত্ববাদী দল রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) কর্মী ছিলেন। আরএসএসের সক্রিয় কর্মী হিসেবে ১৯৯২ সালে তিনি বাবরি মসজিদের ধ্বং’সে অংশ নিয়েছিলেন।

কিন্তু তার উদারপন্থী পরিবার তার কাজকে প্রত্যাখ্যান করলে তিনি নিজেকে অপরাধী মনে করতে থাকেন। মানসিক শান্তির জন্য তিনি উত্তর প্রদেশের মুজাফফরনগরের মাওলানা কলিম সিদ্দিকীর সাথে যোগাযোগ করেন।

পরে ১৯৯৩ সালে তিনি ইসলাম গ্রহণ করেন এবং বলবির সিং থেকে নিজের নাম পরিবর্তন করে মোহাম্মদ আমের রাখেন।

ইসলাম গ্রহণের পর থেকে বাবরি মসজিদ ধ্বং’সে নিজের অংশগ্রহণের বদলায় ১০০ মসজিদ নির্মাণের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছিলেন মোহাম্মদ আমের। এই লক্ষ্যে ১৯৯৪ সালে হরিয়ানায় ‘মসজিদে মদীনা’ নামে প্রথম মসজিদ নির্মাণ করেন তিনি।

গত ২৭ বছরে মোট ৯১টি মসজিদ নির্মাণ করেছিলেন মোহাম্মদ আমের। এছাড়া আরো ৫৯টি মসজিদ বর্তমানে নির্মাণাধীন অবস্থায় রয়েছে।

সূত্র : সিয়াসত ডেইলি

  • সর্বশেষ - আলোচিত খবর