, ১১ আশ্বিন ১৪২৮ অনলাইন সংস্করণ

শত্রুরা এগোচ্ছে মিত্ররা পেছাচ্ছে ও অন্যান্য

  সাহিত্য ডেস্ক

  প্রকাশ : 

শত্রুরা এগোচ্ছে মিত্ররা পেছাচ্ছে ও অন্যান্য

আবু আফজাল সালেহ

শত্রুরা এগোচ্ছে মিত্ররা পেছাচ্ছে

রাত নামতে শুরু করেছে
অন্ধকার গাঢ় থেকে গাঢ়তর হচ্ছে
অক্টোপাসের মতো জড়িয়ে ধরতে চাচ্ছে শত্রুরা
মিত্রের চেয়ে শত্রু বেশি হয়ে যাচ্ছে ক্রমশ
অন্ধকারেই চেনা যায় কাউকে—প্রকৃত না-কি অপ্রকৃত
দুর্দিনের সহযাত্রীরাই কাঙ্ক্ষিত।

গাঢ় অন্ধকার নামছে গুটি গুটি পায়ে—
শত্রুরা এগোচ্ছে
মিত্ররা পেছাচ্ছে
ক্রমেই একা হয়ে যাচ্ছি।

****

মননে যুদ্ধক্ষেত্র

চারিদিকে সবুজ মধ্যিখানে ছোট্ট এক কুঁড়েঘর
পাখি ডাকে চারিপাশে তার—কুজনে মুখরিত ভোর
পাতারা খেলে বাতাসে, বৃষ্টি-ঝড়ে
ঝরে পড়ে ভোরের শিশির।

আলিশানের স্বপ্ন দেখি—
কিন্তু এমন কুঁড়েঘর পছন্দ করি
এ তো মননে যুদ্ধ—
এ দ্বৈতশক্তি তীব্র অশান্তির।

****

বৃষ্টি, রংধনু ও তুমি

তুমি চাইলেই একঝাঁক বৃষ্টি শুরু হবে
তুমি বললেই বিরাট এক রংধনু সৃষ্টি হবে
এই বৃষ্টি—তোমার চোখের চেয়ে বেশি কমনীয় নয়
এই রংধনু—তোমার নগ্ন পায়ের চেয়ে উজ্জ্বলতর নয়
নীলিমার বিস্তীর্ণতায় ঢেকে দেয় তোমার মেঘচুল।

বৃষ্টির পর রোদ্দুর—রংধনু
রংধনুতে সাঁতার কাটব তুমি আর আমি
তোমার ভেতরেই দেখি সৌন্দর্যের সুখটুকু—
চুষে নেব তোমার সৌন্দর্য সব।

****

তোকে ছুঁয়ে দেই

আজ সারাদিন মেঘলা আকাশ
সাগরতীরে মেঘে মেঘে খেলা, রৌদ্রছায়ার লুকোচুরি।
সাগরের ভাঙা ঢেউয়ে তোর খালি পায়ের হাঁটা
তোর উদ্বাহুতে উড়ন্ত প্রজাপতির সৌন্দর্য—
বৃষ্টিতে ভেজা ডানা—মেঘের ছায়ায়।
তোর উৎসুক চোখ বিশাল সাগর
ঝিকিমিকি রোদ্দুর।

অলস দুপুরের পরের এই বিকেলে
বৃষ্টিভেজা তোকে ছুঁয়ে দেই?

****

স্পর্শবিহীন বন্ধনের সুখ

যদি মন চায়, চলে আয়
বরষার এই অলস দুপুরে
কদম-কেয়ার গন্ধ মেখে
বৃষ্টিতে ভিজব দুজনে।
ঝাঁক ঝাঁক বৃষ্টিফোটায় পরিত্যক্ত বিকেলে
তোর ভেজা চুলের গন্ধ শুঁকে
তোকে একটু ছুঁয়ে দেবো—
স্পর্শবিহীন বন্ধনে!

স্পর্শের সুখের চেয়ে বেশি সুখ
কল্পিত সুখের চেয়েও ঢের সুখ এখানে।

  • সর্বশেষ - সাহিত্য