, ১০ কার্তিক ১৪২৮ অনলাইন সংস্করণ

নিখোঁজ হওয়ার ১৭ দিন পর বিলে মিলল শিক্ষার্থীর অর্ধগলিত মরদেহ

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

নিখোঁজ হওয়ার ১৭ দিন পর বিলে মিলল শিক্ষার্থীর অর্ধগলিত মরদেহ

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলায় নিখোঁজ হওয়ার ১৭ দিন পর মো. রুবেল মিয়া (১৭) নামের এক প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীর অর্ধগলিত মরদেহ নিকটস্থ বিলে পাওয়া গেছে।

সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) বেলা দুইটার দিকে উপজেলার ঝিনাইগাতী ইউনিয়নের পাইকুড়া গ্রামের কানী বিল থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন শেরপুরের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (নালিতাবাড়ী সার্কেল) আফরোজা নাজনীন।

রুবেল উপজেলার ধানশাইল ইউনিয়নের কান্দুলী গ্রামের নুরুল হকের ছেলে ও পাইকুড়া এ আর পি উচ্চবিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী। তার এক হাত ও এক পা প্রতিবন্ধী ছিল।

পুলিশ ও রুবেলের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত ১৯ আগস্ট সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রুবেল মিয়া বাড়ি থেকে পাইকুড়া বাজারের উদ্দেশ্যে বের হন। রাতে বাড়ি না ফেরায় রুবেলকে তার পরিবারের লোকজন স্বজনদের বাড়িতে খোঁজাখুঁজি করেন। তবে পাওয়া যায়নি। রুবেলের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও বন্ধ ছিল।

সপ্তাহ ধরেও না পেয়ে গত ২৫ আগস্ট তার বাবা মো. নুরুল হক ঝিনাইগাতী থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। পরে সোমবার সকালে কানী বিলে এলাকাবাসী একটি মরদেহ দেখতে পান। থানা পুলিশকে খবরকে দিলে তারা মরদেহ উদ্ধার করে, রুবেলের পরিবারও মরদেহ তার বলে শনাক্ত করে।

এদিকে মরদেহ উদ্ধারের খবর পেয়ে শেরপুরের সিআইডি ও জামালপুরের পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) দুইটি পৃথক টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

ঝিনাইগাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ফায়েজুর রহমান বলেন, মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। তবে কেউ তাকে হত্যা করে বিলে ফেলে গেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

  • সর্বশেষ - সারাদেশ