, ১১ কার্তিক ১৪২৮ অনলাইন সংস্করণ

করোনা টিকায় মৃত্যুর আশঙ্কা কমে ৯৭ শতাংশ

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

  প্রকাশ : 

করোনা টিকায় মৃত্যুর আশঙ্কা কমে ৯৭ শতাংশ

করোনা টিকার একটি ডোজে মৃত্যুর সম্ভাবনা কমে ৯৬ দশমিক ৬ শতাংশ। অন্যদিকে টিকার দু’টি ডোজের ক্ষেত্রে এই হার ৯৭ দশমিক ৫ শতাংশ। অর্থাৎ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সম্ভাবনা কমাতে করোনা টিকা গড়ে ৯৭ শতাংশেরও বেশি কার্যকর।

বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার এই তথ্য জানিয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি। গত এপ্রিল মাস থেকে আগস্ট মাস পর্যন্ত তথ্য-উপাত্তের উদ্ধৃতি দিয়ে টিকার কার্যকারিতার এই তথ্য সামনে এনেছে দেশটি।

ভারত সরকার বলছে, ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সম্ভাবনা কমিয়ে দেয় করোনা টিকা। দেশটির কেন্দ্রীয় সরকারের দাবি, করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত এপ্রিল-মে মাসে যারা মারা গেছেন তাদের বেশিরভাগই টিকা না নেওয়া ব্যক্তি বলে সমীক্ষায় উঠে এসেছে।

ভারত সরকারের কোভিড টাস্কফোর্স দলের প্রধান ভি কে পাল বলছেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ও নিরাপদে থাকতে টিকা নেওয়াটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি বলছেন, ‘এখন করোনার টিকা সহজলভ্য রয়েছে। তাই টিকা নিয়ে নিতে মানুষকে আমরা অনুরোধ করছি। প্রথম ডোজ নেওয়ার পরই মানুষ কেবল দ্বিতীয় ডোজ পাবেন। আমি ‘নিশ্চিত করছি’ যে- তাহলে (টিকা নিলে) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হবে না।’

দেশটির সরকার বলছে, করোনা টিকা নেওয়ার পরও অনেকে ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন, তবে তাদের মধ্যে কোভিড সংক্রান্ত ‘মৃত্যুর সম্ভাবনা কম’। এছাড়া টিকা নেওয়া ব্যক্তিরা করোনায় আক্রান্ত হলেও তাদের মধ্যে হাসপাতালে ভর্তির হারও অনেক কম।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ভারতে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে। একইসঙ্গে আগের দিনের তুলনায় কমেছে ভাইরাসে আক্রান্ত নতুন রোগীর সংখ্যাও। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া মানুষের তুলনায় সুস্থ হয়েছেন বেশি মানুষ। ফলে শুক্রবার দেশটিতে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা কমেছে, সঙ্গে দৈনিক সংক্রমণের হার নেমেছে ২ শতাংশের নিচে।

শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৩৪ হাজার ৯৭৩ জন মানুষ। অন্যদিকে বৃহস্পতিবারের তুলনায় শুক্রবার ভারতে প্রাণহানির সংখ্যা আরও কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেছেন ২৬০ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৪৯ শতাংশ। এছাড়া একই সময়ের মধ্যে দেশটিতে সংক্রমণের হার নেমে এসেছে ২ শতাংশের নিচে। সর্বশেষ তথ্যে এই হার ১ দশমিক ৯৬ শতাংশে রয়েছে বলে জানানো হয়েছে। ভারতে এখন পর্যন্ত ৭১ কোটিরও বেশি মানুষ করোনার টিকা নিয়েছেন।

  • সর্বশেষ - আন্তর্জাতিক