, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ অনলাইন সংস্করণ

চলন্ত ট্রেনে ছিনতাই-খুনের ঘটনায় মামলা

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

চলন্ত ট্রেনে ছিনতাই-খুনের ঘটনায় মামলা

ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা জামালপুরগামী কমিউটার ট্রেনে ডাকাতি ও দুইজনের খুনের ঘটনায় রেলওয়ে থানায় মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় দুইজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাত ১২টার দিকে ছুরিকাঘাতে নিহত সাগরের মা হনুফা খাতুন বাদী হয়ে ময়মনসিংহ জিআরপি থানায় অজ্ঞাত ৮/১০ জনকে আসামি করে মামলা করেন।

ময়মনসিংহ রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন রহমান বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, এ ঘটনায় অভিযান চালিয়ে ময়মনসিংহ থেকে একজনকে আটক করা হয়েছে। তার নাম পরে জানানো হবে বলেও জানান তিনি।

জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা দেওয়ানগঞ্জগামী জামালপুর কমিউটার ট্রেনের ছাদে গফরগাঁও স্টেশনে কয়েকজন ছিনতাইকারী ওঠে। এসময় ছাদে থাকা তিন যাত্রীর কাছ থেকে মোবাইলফোনসহ নগদ টাকা ছিনিয়ে নেয়ার সময় বাধা দিলে ডাকাতরা প্রথমে দুজনকে ছুরিকাঘাত করে। পরে রুবেল মিয়া নামে আরেকজনকে ছুরিকাঘাত করা হয়। পরে ট্রেনটি ময়মনসিংহ স্টেশনে ঢোকার আগেই কেওয়াটখালী ওভারব্রিজের কাছে মোবাইল ও নগদ টাকা পয়সা নিয়ে ছিনতাইকারীরা নেমে পড়ে। ট্রেনটি জামালপুর পৌঁছালে তিনজনকে ছাদ থেকে নামিয়ে হাসপাতালে নেয়া হলে দুই জনকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক।

নিহতরা হলেন-নাহিদ মিয়া (৪০)। তিনি জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার সানন্দবাড়ি মিতালী বাজার এলাকার ওয়াহেদ মিয়ার ছেলে। ঢাকায় একটি কোম্পানিতে কর্মরত ছিলেন। সাগর মিয়া (২৫) একই জেলার পৌর শহরের বাগেরহাটা এলাকার মো. হাজারুল মিয়ার ছেলে। তিনি ঢাকায় রিকশা চালাতেন। আহত রুবেল মিয়া জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার মাঝপাড়া এলাকার বাসিন্দা।

জামালপুর জিআরপির উপ-পরিদর্শক (এসআই) সোহেল রানা জাগো নিউজকে জানান, এ ঘটনায় আহত রুবেল মিয়াকে জামালপুর সদর হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। তাকে আটক দেখিয়ে ময়মনসিংহ জিআরপি পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

  • সর্বশেষ - ময়মনসিংহ অঞ্চল