, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ অনলাইন সংস্করণ

সিএমএসএমই খাতে পুন:অর্থায়ন তহবিল: ঋণের মেয়াদ হবে ১২ মাস

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

সিএমএসএমই খাতে পুন:অর্থায়ন তহবিল: ঋণের মেয়াদ হবে ১২ মাস

কুটির, মাইক্রো, ক্ষুদ্র ও মাঝারি (সিএমএসএমই) শিল্প খাতের জন্য অর্থায়নের বিপরীতে পুনঃঅর্থায়ন স্কিমে ২৫ হাজার কোটি টাকার তহবিল গঠন করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এই তহবিল থেকে চলতি মূলধন খাতে বিতরণকৃত ঋণ বা বিনিয়োগর মেয়াদ হবে সর্বোচ্চ ১২ মাস বা এক বছর। তবে তা প্রয়োজন বোধে নবায়ন করতে পারবে বলে এ সংক্রান্ত একটি নতুন নির্দেশনা জারি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের এসএমই অ‌্যান্ড স্পেশাল প্রোগ্রামস ডিপার্টমেন্ট থেকে সম্প্রতি জারি করা নির্দেশনা দেশের সব ব্যাংক ও নন ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে পাঠানো হয়েছে।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, উদ্যোক্তাদের মেয়াদি ঋণ বা বিনিয়োগের পাশাপাশি চলতি মূলধন ঋণ বা বিনিয়োগের চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় এবং বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহ কর্তৃক তাদের গ্রাহকদের উক্ত চাহিদা পূরণে অর্থায়ন করার প্রয়োজনীয়তা পরিলক্ষিত হওয়ায় পুন:অর্থায়ন স্কিমের আওতায় মেয়াদি ঋণ বা বিনিয়োগের পাশাপাশি চলতি মূলধন ঋণ বা বিনিয়োগের ক্ষেত্রেও পুনঃঅর্থায়ন সুবিধা প্রদান করা হচ্ছে। কিন্তু অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান কর্তৃক দাখিলকৃত পুনঃঅর্থায়নের আবেদন পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, কিছু কিছু ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান তাদের গ্রাহকদের অনুকূলে এককালীন বা বিভিন্ন ধরনের কিস্তিতে আদায়ের শর্তে ১২ মাসের অধিক মেয়াদের জন্য চলতি মূলধন ঋণ বা বিনিয়োগ প্রদান করেছে। যা চলতি মূলধন ঋণ বা বিনিয়োগের মূল বৈশিষ্ট্যের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়।

এমন পরিস্থিতিতে আলোচ্য স্কিমের আওতায় চলতি মূলধন ঋণ বা বিনিয়োগের মেয়াদ হবে সর্বোচ্চ ১২  মাস। তবে চলতি মূলধন খাতে বিতরণকৃত ঋণ বা বিনিয়োগ প্রয়োজনবোধে নবায়ন করা যাবে। নবায়নকৃত ঋণ বা বিনিয়োগের বিপরীতে পুনঃঅর্থায়নের জন্য ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো বাংলাদেশ ব্যাংকের নিকট পুনরায় আবেদন করতে পারবে। চলতি মূলধন ঋণ বা বিনিয়োগের বিপরীতে পুনঃঅর্থায়নকৃত অর্থ সংশ্লিষ্ট ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান হতে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক মেয়াদান্তে সুদ বা মুনাফাসহ আসল এককালীন আদায় করবে।

ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১ এর ৪৫ ধারা এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইন, ১৯৯৩ এর ১৮ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। যা অবিলম্বে কার্যকর হবে।

  • সর্বশেষ - অর্থ-বাণিজ্য