, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ অনলাইন সংস্করণ

সংবিধানের বাইরে এক চুলও সরব না : ওবায়দুল কাদের

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

সংবিধানের বাইরে এক চুলও সরব না : ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগ সাধারণত বিএনপিকে ভয় পায় না। কিন্তু তাদের একটি বিশেষ কর্মকাণ্ডের ভয় পান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সেই ভয় হলো দলটির আগুন সন্ত্রাসের। শনিবার বিকালে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত শান্তি সমাবেশে বক্তব্য দিতে গিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

সমাবেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ বিএনপিকে ভয় পায় না। আমরা ভয় পাই তাদের অগ্নি সন্ত্রাস কর্মকাণ্ডকে। এ সময় জনগণকে রক্ষায় রাজপথ পাহারা দেবেন বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, রাজপথে কাউকে নামতে দেবো না এটা বলা যাবে না, কারণ রাস্তা সবার। আমরা জনগণের স্বার্থে রাজপথে পাহারাদার হিসেবে আছি। জনগণকে রক্ষার জন্য আমরা পাহারা দেব। তারা (বিএনপি) সাম্প্রদায়িক শক্তির বন্ধু। তাদের ক্ষমতায় বসার অধিকার নেই। তারা আগের মতো অগ্নি সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের পরিকল্পনা করছে। সংবিধানের বাইরে এক চুলও সরব না। তত্ত্বাবধায়ক সরকার ভুলে যান, ওই সরকার আর আসবে না।

এসময় বিএনপির পদযাত্রা পাশে বড় হচ্ছে কিন্তু দৈর্ঘ্যে কমে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, অশুভ শক্তিকে সঙ্গে নিয়ে পদযাত্রা আর পথযাত্রা যা-ই করো, কোনো লাভ হবে না। পথ হারিয়ে পথিক এখন দিশেহারা। বিএনপির পদযাত্রায় নেতা বাড়ছে কিন্তু কর্মী কমে যাচ্ছে। একটা কথা বলতে চাই, নির্বাচন সামনে বাংলাদেশ আর অন্ধকারে যাবে না।

শান্তি সমাবেশে ছাত্রলীগের ব্যাপারেও কথা বলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। সংগঠনটির নামে যারা অপকর্ম করছে তারা দুর্বৃত্ত বলেও মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, গুটি কয়েকের জন্য আওয়ামী লীগের নাম দুর্নাম করতে দেব না। যারা অপকর্ম করার চেষ্টা করছে তাদের বিরুদ্ধেও খেলা হবে। যারা অন্যায় করবে বা অপরাধ করবে তাদের ছাড় দেওয়া হবে না। অপকর্মের জন্য দলের নাম ব্যবহার করলে তাদের ছাড় দেওয়া হবে না। অপরাধের ছাড় না দেওয়ার ইতিহাস আওয়ামী লীগের আছে। এদেরকে এনে মিছিল বড় করার কোনো দরকার নেই। আওয়ামী লীগের ভালো নেতাকর্মীর অভাব নেই।

তিনি আরও বলেন, আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ভোট রাখার জায়গা হবে না। এবার আওয়ামী লীগের পক্ষে এতো তরুণ ও নারীরা আছেন, যারা সবাই শেখের বেটি হাসিনাকে ভোট দিতে প্রস্তুত। আগামী নির্বাচন খেলা হবে। মোকাবিলা হবে।সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নুরুল আমিন রুহুল। সঞ্চালনা করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির।

  • সর্বশেষ - সারাদেশ