, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ অনলাইন সংস্করণ

সিলেটে মা-বাবাকে হত্যার দায়ে ছেলের মৃত্যুদণ্ড

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

সিলেটে মা-বাবাকে হত্যার দায়ে ছেলের মৃত্যুদণ্ড

সিলেটে মা-বাবাকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যার দায়ে এক পাষণ্ড ছেলেকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া পৃথক ধারায় ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন বিচারক। বৃহস্পতিবার সিলেটের দায়রা জজ আদালতের সিনিয়র বিচারক মশিউর রহমান চৌধুরী এ রায় ঘোষণা করেন। আদালতের সরকারি কৌঁসুলী নিজাম উদ্দিন রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি আতিকুর রহমান রাহেল (৩৬) সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার সুনামগপুর গ্রামের আবদুল করিম খানের ছেলে। 

মামলা সূত্রে জানা যায়, বাড়ির পার্শ্ববর্তী একখণ্ড জমি নিজের নামে লিখে দিতে রাহেল তার বাবা আবদুল করিম খানকে চাপ দিয়ে আসছিল। ২০২০ সালের ২৭ মার্চ সে আবারও বাবাকে ওই জায়গা লিখে দিতে চাপ সৃষ্টি করে। এসময় তার মা মিনারা বেগম বাধা দিলে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। একপর্যায়ে রাহেল কোদাল দিয়ে তার মাকে মারতে উদ্যত হয়। এসময় তাকে নিবৃত করতে গেলে সে বাবা আবদুল করিম খানের মাথায় কোদাল দিয়ে কোপ দেয়। এরপর সে মাকে কোদাল দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপায়। চিৎকার শুনে পরিবারের লোকজন ছুটে আসলে রাহেল পালিয়ে যায়।

রাহেলের কোদালের কোপে আবদুল করিম খান ঘটনাস্থলেই মারা যান। আর আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করা হয় মা মিনারা বেগমকে। কয়েকদিন চিকিৎসা শেষে মিনারা বেগমকে বাড়িতে নেওয়া হলে তিনিও মারা যান। এ ঘটনায় রাহেলের বড় ভাই দেলোয়ার হোসেন বাদী হয়ে গোলাপগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। 

পুলিশ ওই বছরের ২৮ মার্চ রাহেলকে গ্রেফতার করলে সে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। বিচারিক প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে বৃহস্পতিবার বিচারক রাহেলকে মৃত্যুদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দেন। রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলী নিজাম উদ্দিন আহমদ জানান, সাক্ষ্য প্রমাণে আতিকুর রহমান রাহেল দোষী সাব্যস্ত হওয়ার আদালত তাকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন। তবে, রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন বলে জানান আসামি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন।

  • সর্বশেষ - সারাদেশ