, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ অনলাইন সংস্করণ

শেরপুরের ধর্ষনের দায়ে যাবজ্জীবন দণ্ডিত আসামি ১৯ বছর পর গ্রেফতার

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

শেরপুরের ধর্ষনের দায়ে যাবজ্জীবন দণ্ডিত আসামি ১৯ বছর পর গ্রেফতার

শেরপুরের ঝিনাগাতীতে ছয় বছরের শিশু ধর্ষণ মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি মো. জাকির হোসেন (৩৫) নামে একজনকে ১৯ বছর পলাতক থাকার পর গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। সাজাপ্রাপ্ত জাকির হোসেন জেলার ঝিনাইগাতী উপজেলার নলকুড়া গ্রামের জনৈক  আবেদ আলীর ছেলে। মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) দিবাগত মধ্যরাতে নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১৪, সিপিসি-১, জামালপুর ক্যাম্পের সদস্যরা। বুধবার (২২ নভেম্বর) দুপুরে র‌্যাব-১৪ এর দেয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছ।

তথ্যে জানানো হয়, ২০০৪ সালের ২৬ নভেম্বর নির্যাতনের শিকার ওই শিশু তার বাবার খোঁজে বাড়ির পশ্চিম পাশে মহারশি নদীর ধারে যায়। বাবাকে না পেয়ে একা বাড়িতে ফিরছিল শিশুটি। এমন সময় বখাটে জাকির হোসেন শিশুটিকে নদীর ধারে একটি ঝোপের ভিতর নিয়ে জোরপূরর্বক ধর্ষণ করে। এসময় শিশুটির আত্মচিৎকারে তার মা ও স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে আসামি জাকির দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এই ঘটনার দুইদিন পর শিশুটির বাবা বাদী হয়ে ঝিনাইগাতী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করে।

মামলার তদন্ত শেষে আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করলে ২০০৯ সালের ৮ অক্টোবর শেরপুর জেলা ও দায়রা জজ ট্রাইবুনাল-২ আদালত আসামি জাকিরকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো ৩ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। মামলার পর থেকেই পলাতক ছিল আসামি জাকির হোসেন। গ্রেফতাররকৃত আসামিকে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নিতে ঝিনাইগাতী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানায় র‌্যাব।

  • সর্বশেষ - ময়মনসিংহ অঞ্চল