, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ অনলাইন সংস্করণ

আফগানিস্তানকে হোয়াইটওয়াশ করে ছাড়ল শ্রীলঙ্কা

  স্পোর্টস ডেস্ক

  প্রকাশ : 

আফগানিস্তানকে হোয়াইটওয়াশ করে ছাড়ল শ্রীলঙ্কা

ব্যাট হাতে আরেকবার জ্বলে উঠলেন পাথুম নিসাঙ্কা। প্রথম ম্যাচে রেকর্ড গড়া ডাবল সেঞ্চুরি করা শ্রীলঙ্কার ওপেনার এবার উপহার দিলেন শতক। খুনে ব্যাটিংয়ে সেঞ্চুরির সম্ভাবনা জাগানো আভিশকা ফার্নান্দো ফিরলেন অল্পের জন্য না পাওয়ার আক্ষেপ নিয়ে। দুইজনের ব্যাটে আফগানিস্তানকে হোয়াইটওয়াশ করে ছাড়ল লঙ্কানরা। পাল্লেকেলেতে বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে শ্রীলঙ্কার জয় ৭ উইকেটে। আফগানদের ২৬৬ রান তারা পেরিয়ে যায় ৮৮ বল বাকি থাকতে। লক্ষ্য তাড়ায় স্বাগতিকদের রান রেট ছিল ওভারপ্রতি সাতের ওপরে।

প্রথম ওয়ানডেতে অপরাজিত ২১০ রান করা নিসাঙ্কা এ দিন খেলেন ১১৮ রানের ইনিংস। তার ১০১ বলের ইনিংসটি সাজানো ২ ছক্কা ও ১৬ চারে। এমন পারফরম্যান্সে ম্যাচ সেরা তো বটেই, সিরিজ সেরার পুরস্কারও জেতেন তিনি। এই ইনিংসের পথে ওয়ানডেতে লঙ্কানদের হয়ে দ্রুততম ২ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন নিসাঙ্কা। ৫২ ইনিংসে এই ক্লাবে পা দিয়ে তিনি ভেঙে দেন ৬৩ ইনিংসে গড়া উপুল থারাঙ্গার রেকর্ড, যিনি বর্তমানে শ্রীলঙ্কার নির্বাচক কমিটির প্রধান।

রান তাড়ায় ইনিংস শুরু করতে নামা আভিশকা তাণ্ডব চালিয়ে ৫ ছক্কা ও ১০ চারে করেন ৬৬ বলে ৯১ রান। নিসাঙ্কার সঙ্গে তার ১৭৩ রানের উদ্বোধনী জুটিতে জয়ের শক্ত ভিত পেয়ে যায় স্বাগতিকরা। রেহমাত শাহর ৬৫ ও আজমাতউল্লাহ ওমারজাইয়ের ৫৪ রানের ইনিংসে বড় সংগ্রহের ভিত পায় আফগানিস্তান। কিন্তু শেষ দিকের ব্যাটিং ধসে বেশিদূর যেতে পারেনি তারা। ৪৩ রান তুলতে শেষ ৬ উইকেট হারায় দলটি। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ইব্রাহিম জাদরানকে দ্রুত হারালেও ৫৭ রানের জুটিতে আফগানদের পথে রাখেন রহমানউল্লাহ গুরবাজ ও রেহমাত। ৪৮ রান করা গুরবাজকে বোল্ড করার পর হাশমাতউল্লাহ শাহিদিকেও ফেরান ২০২১ সালের পর ওয়ানডে খেলতে নামা স্পিনার আকিলা দনাঞ্জয়া।

এরপর ওমারজাইয়ের সঙ্গে ৫৯ বলে ৫৮ রানের জুটি গড়েন রেহমাত। ১ ছক্কা ও ৭ চারের ইনিংস খেলে রেহমাত বিদায় নিলে ইকরাম আলিখিলকে নিয়ে দলকে কিছুক্ষণ টানেন ওমারজাই। ৫৭ রানের জুটি ভাঙার পর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে আড়াইশ পেরিয়েই গুটিয়ে যায় সফরকারীরা। এই রানও লড়ার জন্য খারাপ ছিল না। কিন্তু আফগানদের সেই সুযোগই দেননি নিসাঙ্কা ও আভিশকা। শুরু থেকেই বোলারদের ওপর তাণ্ডব চালান আভিশকা, রয়েসয়ে খেলেন নিসাঙ্কা। তাদের নৈপুণ্যে পাওয়ার প্লেতে ৮৩ রান তোলে শ্রীলঙ্কা। এই সময়েই ২৫ বলে ফিফটি স্পর্শ করেন আভিশকা।

পঞ্চাশের পর কিছুটা মন্থর হয়ে যান তিনি। তবে সুযোগ পেলে আদায় করে দেন বাউন্ডারি। সেঞ্চুরি যখন দৃষ্টি সীমানায়, কাইস আহেমেদের লেগ স্পিনে এক্সট্রা কাভারে ক্যাচ দিয়ে হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়েন লঙ্কান ওপেনার। ৫৫ বলে ফিফটি করা নিসাঙ্কা সেই ভুল করেননি। মনোযোগ ধরে রেখে পঞ্চম ওয়ানডে সেঞ্চুরিতে পা রাখেন ৮৯ বলে। ক্রিজে গিয়েই আগ্রাসী ব্যাটিংয়ের পথে হাঁটা কুসাল মেন্ডিস ৪ ছক্কায় বিদায় নেন ২৯ বলে ৪০ রান করে। ততক্ষণে অবশ্য জয়ের কাছে পৌঁছে যায় শ্রীলঙ্কা। দলকে জিতিয়ে ফিরতে পারেননি নিসাঙ্কাও। পরের ওভারেই শেষ হয় তার চমৎকার ইনিংস।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

আফগানিস্তান: ৫০ ওভারে ২৬৬ (গুরবাজ ৪৮, ইব্রাহিম ১৩, রেহমাত ৬৫, শাহিদি ৫, ওমারজাই ৫৪, ইকরাম ৩২, নাবি ১৪, আশরাফ ৪, কাইস ১১, ফারিদ ৫, ফারুকি ০*; মাদুশাঙ্কা ৬-০-৫২-০, মাদুশান ৮.২-০-৪৫-৩, আসিথা ৯-০-৪৪-২, ওয়েলালাগে ১০-০-৩৮-২, লিয়ানাগে ২-০-১১-০, আকিলা ১০-০-৫৪-২, আসালাঙ্কা ৩-০-১৭-০)

শ্রীলঙ্কা: ৩৫.২ ওভারে ২৬৭/৩ (নিসাঙ্কা ১১৮, আভিশকা ৯১, মেন্ডিস ৪০, সামারাউইক্রামা ৮*, আসালাঙ্কা ৭*; ফারুকি ৫-০-৫৪-০, ওমারজাই ৪-০-২৯-০, আশরাফ ৬-০-৪৭-০, ফারিদ ৪-০-৪৫-০, নাবি ৯.২-০-৪৬-১, কাইস ৭-০-৪৬-২)

ফল: শ্রীলঙ্কা ৭ উইকেটে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: পাথুম নিসাঙ্কা

সিরিজ: ৩ ম্যাচের সিরিজ ৩-০তে জয়ী শ্রীলঙ্কা

ম্যান অব দা সিরিজ: পাথুম নিসাঙ্কা

  • সর্বশেষ - খেলাধুলা