, ৫ আষাঢ় ১৪২৮ অনলাইন সংস্করণ

মুম্বাইকে হারিয়ে প্রতিশোধ নিল দিল্লি

  স্পোর্টস ডেস্ক

  প্রকাশ : 

মুম্বাইকে হারিয়ে প্রতিশোধ নিল দিল্লি

অমিত মিশ্রর বোলিং তোপে ১৩৭ রানেই থেমে যায় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের ইনিংস। এমন সহজ লক্ষ্য, অথচ দিল্লি ক্যাপিটেলস কিনা ম্যাচটি জিতলো কঠিন করে! ৫ বল হাতে রেখে শেখর ধাওয়ান-স্টিভেন স্মিথ-ললিত যাদব-হেটমায়ারদের ব্যাটে ৬ উইকেটের জয় পায় দিল্লি। এই জয় কেবল দিল্লির জন্য জয়ই নয়, মধুর প্রতিশোধও! গত আসরে ফাইনালসহ সবমিলিয়ে চার ম্যাচ খেলে সবগুলোতেই হেরেছিল দিল্লি। এবার প্রথম মোকাবিলায় রোহিত শর্মার দলকে হারালো ঋষভ পান্তের দল।

চেন্নাইয়ের এম চিদাম্বারাম স্টেডিয়ামে ১৩৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুতেই হোঁচট খায় দিল্লি। ১১ রানে ওপেনার পৃথ্বী শকে হারিয়ে বিপদে পড়ে তারা। দ্বিতীয় উইকেটে শেখর ধাওয়ান ও স্টিভেন স্মিথ বিপদ কাটানোর চেষ্টা করেন। তবে ৫৩ রানের জুটি গড়েই সাজঘরে ফেরেন অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান স্মিথ। ২৯ বলে ৪ চারে তার সংগ্রহ ৩৩।

সঙ্গীকে হারিয়ে ললিত যাদবকে নিয়ে ভালোই খেলছিলেন আগের ম্যাচে জয়ের নায়ক ধাওয়ান। কিন্তু ব্যক্তিগত ৪৫ রানে চাহালের শিকারে পরিণত হন তিনি। ৫ চার ও ১ ছক্কায় খেলেন দলীয় সর্বোচ্চ ৪৫ রানের ইনিংস। এরপর ললিত যাদব ও শিমরন হেটমায়ার মিলে দলের জয় নিশ্চিত করেন। যাদব ২৫ বলে ২২ এবং হেটমায়ার ৯ বলে ১৪ রানে অপরাজিত ছিলেন।

মুম্বাইয়ের বোলারদের মধ্যে জয়ন্ত যাদব, জসপ্রিত বুমরা, রাহুল চাহার ও কাইরন পোলার্ড প্রত্যেকে একটি করে উইকেট নিয়েছেন।

এর আগে টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন মুম্বাইয়ের অধিনায়ক রোহিত শর্মা। কিন্তু শুরুতেই বিপর্যয়ে পড়ে দলটি। দলীয় ৯ রানে ফিরে যান ওপেনার কুইন্টন ডি কক। দ্বিতীয় উইকেটে রোহিত শর্মা ও সূর্যকুমার যাদব মিলে গুরুত্বপূর্ণ ৫৮ রানের জুটি গড়ে প্রাথমিক বিপর্যয় সামাল দেন। ৪ চারে ১৫ বলে ২৪ রান করে যাদব আউট হলে আবারও ছন্দপতন ঘটে মুম্বাইয়ের।

সঙ্গীকে হারিয়ে দলীয় সর্বোচ্চ ৪৪ রান করা রোহিত ফিরে যান সাজঘরে। আউট হওয়ার আগে ৩ চার ও ৩ ছক্কায় রোহিত নিজের ইনিংসটি সাজিয়েছেন। এরপর ইশান কিশানের ২৮ বলে ২৬ এবং জয়ন্ত যাদবের ২২ বলে ২৩ রানের ইনিংসে কোনমতে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৩৭ রানের সংগ্রহ দাঁড় করাতে পারে মুম্বাই।

মুম্বাইকে অল্প রানে বেঁধে ফেলতে কার্যকরী ভূমিকা রাখেন অমিত মিশ্র। তিনি ২৪ রান খরচায় নেন চারটি উইকেট। এছাড়া আবেশ খান দুটি উইকেট নেন।

সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন
  • সর্বশেষ - খেলাধুলা